website page counter টিফিনের বিস্কুট নিয়ে পালানোর সময় হাতেনাতে ধরা প্রধান শিক্ষক - শিক্ষাবার্তা ডট কম

রবিবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং, ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | বসন্তকাল | ⏰ বিকাল ৪:৩৯

টিফিনের বিস্কুট নিয়ে পালানোর সময় হাতেনাতে ধরা প্রধান শিক্ষক

লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা ইউনিয়নের রসুলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ১ ব্যাগ (১০০ প্যাকেট) বিস্কুট নিয়ে যাওয়ার সময় ওই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সহিদুল ইসলামকে আটক করেছে স্থানীয় বাসিন্দারা।

ওই বিস্কুটগুলো গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক দারিদ্রপীড়িত এলাকায় স্কুল ফিডিং (প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের) এর জন্য।

শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে স্থানীয়রা তাকে আটক করে।

এ বিষয়ে স্থানীয় বাসিন্দা ঈমান ফারুক (৫০) বলেন, প্রধান শিক্ষক মাঝে মধ্যেই কার্টুন ভর্তি বিস্কুট স্কুল থেকে কৌশলে নিয়ে যান। আমরা শনিবার একব্যাগ বিস্কুটসহ তাকে আটক করি। এ সময় বাউরা ইউনিয়নের মেম্বর আনিছুর রহমান মানিক উপস্থিত ছিলেন। আমরা তার কাছে বিস্কুটসহ প্রধান শিক্ষককে দিয়েছি।

বাউরা ইউনিয়ন পরিষদের ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আনিছুর রহমান মানিক উপস্থিত থাকায় বিস্কুটসহ তার ছবি তুলে ছেড়ে দেন এবং ছবিগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় উঠে।

রসুলপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দাতা সদস্য রেজাউল করিম সেলিম বলেন, প্রধান শিক্ষক সহিদুল ইসলাম প্রায়ই স্কুল থেকে গোপনে বিস্কুট বাড়ি নিয়ে যান। বিষয়টি মৌখিকভাবে কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি আমি।

প্রধান শিক্ষক সহিদুল ইসলাম বলেন, কৌশল করে আমাকে ফাঁসিয়েছে তারা। আমার ব্যাগে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ছিল। তার ওপর আমি ছেঁড়া-ফাটা বিস্কুটের প্যাকেটগুলো উপজেলা বিস্কুট অফিসে ফেরত দেয়ার জন্য নিয়ে যাচ্ছিলাম।

এ বিষয়ে পাটগ্রাম উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবুল হোসেন বলেন, আমি ফেসবুকে বিষয়টি দেখেছি। তবে কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই বিভাগের আরও খবরঃ