website page counter প্রধান শিক্ষককের ১১, সহকারীরা ১৩তম - শিক্ষাবার্তা ডট কম

শুক্রবার, ২১শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রধান শিক্ষককের ১১, সহকারীরা ১৩তম

অনলাইন ডেস্ক :

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের ১০ ও সহকারীদের ১২তম গ্রেড দেয়ার প্রস্তাব অর্থ মন্ত্রণালয় পাঠিয়েছিলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। তবে সে প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিল অর্থ মন্ত্রণালয়। এর প্রেক্ষিতে আলোচনায় বসে দুই মন্ত্রণালয়। আলোচনায় প্রধান শিক্ষকদের ১১তম ও সহকারীদের ১৩তম গ্রেড দিতে সম্মত হয়েছে অর্থ মন্ত্রণালয়। এই তথ্য জানিয়েছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন।

তিনি বলেন, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের ১০ ও সহকারীদের ১২তম গ্রেড দেয়ার প্রস্তাব অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে ফিরিয়ে দেয়ার পর এ বিষয়ে আবারও অর্থ মন্ত্রণালয় সচিবের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। তার সঙ্গে বৈঠক করে প্রধান শিক্ষকদের ১১তম ও সহকারীদের ১৩তম গ্রেড দেয়ার সম্মতি পাওয়া গেছে। এর মাঝে ১২তম গ্রেডে সহকারী প্রধান শিক্ষক পদ সৃজন করা হচ্ছে।

ফলে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষকদের গ্রেড পরিবর্তনের ঘোষণা আসছে। নতুন গ্রেড অনুযায়ী প্রধান শিক্ষকদের ১১তম এবং সহকারী শিক্ষকদের ১৩তম গ্রেডে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। এছাড়া নতুন করে ১২তম গ্রেডে সহকারী প্রধান শিক্ষকের পদ সৃজন করা হচ্ছে।

আকরাম আল হোসেন বলেন, বর্তমানে প্রশিক্ষণবিহীন সহকারী শিক্ষকরা ১৪তম ও প্রশিক্ষণপ্রাপ্তরা ১৩তম গ্রেড পান। প্রধান শিক্ষকরাও প্রশিক্ষণ ছাড়া ১২তম ও প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের ১১তম গ্রেড দেয়া হচ্ছে। তবে এটি পরিবর্তন করে যোগদানের পরই প্রধানরা ১১তম ও সহকারীরা ১৩তম গ্রেড পাবেন। এ-সংক্রান্ত প্রস্তাব দ্রুত অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষকদের বেতনবৈষম্য দূরীকরণ কাজ শুরু হয়েছে। নতুন গ্রেড বাস্তবায়ন হলে এ বৈষম্য অনেকটা দূর হয়ে যাবে।

এদিকে বেতন বাড়ানোর নামে কেউ আন্দোলনে যুক্ত হলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমরা কঠোর অবস্থানে, বিষয়টি নিয়ে প্রতিমন্ত্রীর (জাকির হোসেন) সঙ্গে আলোচনা হয়েছে।

উল্লেখ্য প্রধানদের ১০ম ও সহকারীদের ১১তম গ্রেডের দাবিতে আন্দোলন করছেন প্রাথমিক শিক্ষকরা। বেতন বৈষম্য নিরসন তথা সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে এবং প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেডে বেতন বাস্তবায়নের দাবিতে আগামী ২৩ অক্টোবর (বুধবার) রাজধানীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মহাসমাবেশের ডাক দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষকদের ১৪টি সংগঠন নিয়ে গঠিত মোর্চা বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদ। দাবি আদায়ে ৪ দিন বিভিন্ন মেয়াদে কর্মবিরতি পালন করেছেন শিক্ষকরা। কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পূর্বঘোষিত মহাসমাবেশের ভেন্যু নির্ধারণ করা হয়েছে। রোববার (২০ অক্টোবর) ঐক্য পরিষদের নেতারা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবি আদায়ে দেশের ৬৬ হাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় পৌনে চার লাখ শিক্ষককে আগামী ২৩ অক্টোবর (বুধবার) সকাল ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে মহাসমাবেশে অংশগ্রহণ করার আহ্বান জানিয়েছেন ঐক্য পরিষদের নেতারা। সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেডে এবং প্রধান শিক্ষকদের ১০ম গ্রেডে বেতন বাস্তবায়নের দাবি আদায়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে গত ১৭ অক্টোবর পূর্ণদিবস, ১৬ অক্টোবর অর্ধদিবস, ১৫ অক্টোবর ৩ ঘণ্টা এবং এর ১৪ অক্টোবর কর্মসূচির প্রথমদিনে ২ ঘণ্টা কর্মবিরতি পালন করেন শিক্ষকরা। বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক ঐক্য পরিষদ ডাকে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। আর বেতন বৈষম্য নিরসনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া কারও আশ্বাসে কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হবে না বলে জানিয়েছেন ঐক্য পরিষদের নেতারা।

এই বিভাগের আরও খবরঃ