website page counter যে কারণে এমপিওভুক্তির প্রজ্ঞাপে বিলম্বিত - শিক্ষাবার্তা ডট কম

সোমবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ৩রা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

যে কারণে এমপিওভুক্তির প্রজ্ঞাপে বিলম্বিত

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির তালিকায় অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এক হাজার ৬৫৩টি স্কুল ও কলেজকে এমপিওভুক্ত করার অনুমোদন দিয়েছেন তিনি। অনুমোদন পাওয়া এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এই তালিকা দুই একদিনের মধ্যেই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পৌঁছাবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে, বিদেশে থাকা শিক্ষামন্ত্রী এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব দেশে ফিরলে এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

জানা গেছে, স্কুল-কলেজের এমপিওভুক্তির একটি তালিকা গত ৮ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়। স্কুল-কলেজের এমপিওভুক্তির একটি তালিকা গত ৮ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো হয়। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠানো সারসংক্ষেপের সঙ্গে ২০১৮ সালের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালাও পাঠায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এরপর গত ২৮ আগস্ট প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জানতে চাওয়া হয়, কোন মানদণ্ডে এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। একইসঙ্গে ২০১৮ সালের নীতিমালার কয়েকটি জায়গায় মুদ্রণজনিত ভুল সংশোধন করারও নির্দেশ দেওয়া হয় প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের চিঠিতে। পরে সে অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মানদণ্ডের ব্যাখ্যা পাঠানো হয়। চূড়ান্ত অনুমোদন পায় এক হাজার ৬৫৩টি স্কুল ও কলেজ।

এদিকে, এমপিওভুক্তির জন্য ১ হাজারের মতো মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানেরও তালিকা তৈরি করা হয়েছে।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানিয়েছিলেন, প্রায় আড়াই হাজার স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে।

সারাদেশে এমপিওভুক্তির জন্য চূড়ান্ত করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয়, স্কুল অ্যান্ড কলেজ, উচ্চ মাধ্যমিক কলেজ এবং ডিগ্রি পর্যায়ের কলেজ। এছাড়া রয়েছে মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ প্রায় নয় বছর বন্ধ থাকার পর আবার এমপিওভুক্ত হচ্ছে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। গত ১৩ জুন জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতায় এমপিওভুক্তির কার্যক্রমের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থের জোগান রাখার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল অসুস্থ থাকায় বাজেটের এই অংশটি পড়েন প্রধানমন্ত্রী।

এই বিভাগের আরও খবরঃ