website page counter শিক্ষক রফিকুলকে গ্রেপ্তার করল দুদক - শিক্ষাবার্তা ডট কম

শনিবার, ২২শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শিক্ষক রফিকুলকে গ্রেপ্তার করল দুদক

নিউজ ডেস্ক।।

সরকারি নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে একসঙ্গে দুই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার অভিযোগে মো. রফিকুল ইসলাম (৪৩) নামে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক প্রধান শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল রবিবার দুপুরে নগরীর আগ্রাবাদ বাদামতলী মোড় থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। রফিকুলের বাড়ি চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার চুন্নাপাড়ায়। তিনি ওই এলাকার আবদুল সাত্তারের ছেলে।

দুদক সূত্র জানায়, রফিকুল ইসলাম ২০০০ সালের ২৯ অক্টোবর লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি ইউনিয়নে সচিব হিসেবে যোগদান করেন। এর দশ মাস পর ২০০১ সালের ২৯ আগস্ট তিনি সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন আনোয়ারা উপজেলার সরস্বতী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। এই স্কুলে দুই বছর চাকরি করার পর তিনি ২০০৩ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি চাকরি থেকে অব্যাহতি নেন। কিন্তু অব্যাহতি নেওয়ার এক মাস আগে থেকে চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার দক্ষিণ জুইদ-ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন শুরু করেন। পরবর্তীতে একই উপজেলার উত্তর বন্দর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হিসেবে বদলি হয়ে গ্রেপ্তারের আগ পর্যন্ত সেখানেই কর্মরত ছিলেন।

একই সময়ে শিক্ষকতার পাশাপাশি চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি, মিরসরাই উপজেলার হিঙ্গুলী ও আনোয়ারা উপজেলার বরুমছড়া ইউপিসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদে সচিব হিসেবে কর্মরত ছিলেন রফিকুল। দুদকের তদন্তে এ অনিয়মের সত্যতা পায়। তার পর তার বিরুদ্ধে দুদক মামলা দায়ের করে। সর্বশেষ তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মামলার বাদী দুদকের চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয় ২-এর উপসহকারী পরিচালক মুহাম্মদ জাফর সাদেক শিবলী। তিনি বলেন, দেড় যুগ ধরে সরকারি দুই পদে কর্মরত ছিলেন রফিকুল ইসলাম। তিনি ইউনিয়ন পরিষদের সচিব পদে কর্মরত দেখিয়ে অবৈধভাবে বেতন-ভাতা বাবদ প্রায় ১৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন, যা দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

এই বিভাগের আরও খবরঃ