website page counter সাংবাদিকদের সাথে ধমকের সুরে কথা বলতেই অভ্যস্ত ভিসি! - শিক্ষাবার্তা ডট কম

সোমবার, ১৪ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ২৯শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সাংবাদিকদের সাথে ধমকের সুরে কথা বলতেই অভ্যস্ত ভিসি!

নারী কেলেঙ্কারীসহ নানান অভিযোগে অভিযুক্ত গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) উপাচার্য খোন্দকার নাসির উদ্দিন বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে ধমকের শুরে কথা বলতেই বেশি অভ্যস্ত।

সম্প্রতি একটি দৈনিকের বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি ও ভিসি খোন্দকার নাসির উদ্দিনের ফাঁস হওয়া ফোনালাপ থেকে বিষয়টি জানা গেছে। ওই ফোনালাপে একটি দৈনিকের বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি বাজেটসহ বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চাইলে উপাচার্য তার সাথে ধমকের শুরে কথা বলেন।

ওই প্রতিবেদক ভিসির কাছে জানতে চান বিশ্ববিদ্যালয়ের বাজেট কেন জানানো হয় না? তখন ভিসি ওই প্রতিবেদককে ধমকের শুরে বলেন, বাজেট নিয়ে তোমাদের এত হেডেক কেন? বিশ্ববিদ্যালয় চালানোর জন্য যা দেয়া হয় তাই দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় চলে। এটা খুব ছোট বিষয়। এটা নিয়ে নিউজ করার দরকার নেই। নিউজ করলে গাছ নিয়ে নিউজ কর।

তিনি আরও বলেন, বাজেট নিয়ে আমি জানিও না, আমরা এত মাথাও ঘামাই না। বাজেট বিশ্বাবদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) দেয়, বাজেট ইউনিভার্সিটি দেয়, আমি বাজেট দেই না। বাজেট নিয়ে নিউজ করার কি দরকার। বিশ্ববিদ্যালয়ের গাছ নিয়ে নিউজ কর। গাছ নিয়ে কয়টা নিউজ করছো? গাছ নিয়ে করা নিউজগুলো আমার অফিসে নিয়ে এসো।

বহিষ্কার হওয়ার ভয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত বিভিন্ন অনলাইন এবং জাতীয় দৈনিকের প্রতিনিধি জানিয়েছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌর্ন্দয্য বর্ধন এবং বিশ্ববিদ্যালয়কে গ্রীন ক্যাম্পাসে রুপান্তরিত করার কথা বলে লাখ লাখ টাকা আত্মসাত করেন উপাচার্য খোন্দকার নাসির উদ্দিন। বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি বনসাই জাতীয় গাছের আসল দাম ৮০ হাজার টাকা হলেও তার দাম দেখানো হয়েছে কয়েক লাখ টাকা। এছাড়া শুধুমাত্র গাছের গোবর কেনার পেছনেই ব্যয় করা হয়েছে এক কোটি টাকা।

তারা আরও জানান, ২০১৭ সালের অফিস সহকারি কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে নিয়োগের ক্ষেত্রেও উপাচার্য অনিয়ম করেছেন বলে ফোন রেকর্ড থেকে জানা গেছে। এই নিয়োগ পরীক্ষায় ২১তম রিজেন বোর্ডের সভায় সুপারিশ প্রাপ্তদের মধ্যে এক নম্বরে থেকেও নিয়োগ না দেয়ার অভিযোগ রয়েছে উপাচার্যের বিরুদ্ধে। তবে উপাচার্য বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, তিনি সুপারিশ প্রাপ্ত হননি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার নুরুদ্দীন আহমেদ বলেন, ভিসি স্যার কি বলেছেন, না বলেছেন তা আমি জানি না। তিনি আমাকে সামনে রেখে কিছু বলেননি। উপাচার্যের কথোপকথনের অডিও ভাইরাল হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, শুনেছি একটি অডিও ভাইরাল হয়েছে। কিন্তু আমি এখনও অডিওটি শুনিনি।

এই বিভাগের আরও খবরঃ