website page counter জেএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি- বিজ্ঞান - শিক্ষাবার্তা ডট কম

সোমবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, ১লা পৌষ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

জেএসসি পরীক্ষার প্রস্তুতি- বিজ্ঞান

প্রিয় শিক্ষার্থী বন্ধুরা, তোমাদের জেএসসি পরীক্ষায় ভালো ফলাফল ও ভবিষ্যতে উচ্চতর শিক্ষার ক্ষেত্রে বিজ্ঞান বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অধ্যায়ভিত্তিক রচনামূলক (সৃজনশীল) প্রশ্নোত্তর তোমাদের জন্য তুলে ধরা হলো। আজকে পঞ্চম অধ্যায় অর্থাত্ “সমন্বয় ও নি:সরণ” থেকে সৃজনশীল রচনামূলক প্রশ্ন তুলে ধরা হলো।

উদ্দীপকটি পড় ও নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর দাও।

নূরজাহান বেগম সূঁচ দিয়ে কাপড় সেলাইয়ের সময় প্রবাসী বাবার কথা মনে পড়তেই হঠাত্ আঙ্গুলে সূঁচ ফুটে গেল। তাত্ক্ষণিকভাবে তার হাতটি অন্যত্র সরে যায়।

ক. প্রতিবর্ত ক্রিয়া কাকে বলে?

খ. হরমোন কীভাবে কাজ করে? ব্যাখ্যা করো।

গ. নূরজাহান বেগমের হাতে সূঁচ ফোটা ও হাত তাত্ক্ষণিকভাবে সরিয়ে নেয়ার ঘটনাটির বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা দাও।

ঘ. নূরজাহান বেগমের সূঁচ ফোটার অনুভূতিবাহী টিস্যুটি প্রাণীদেহে অপরিহার্য- মতামত দাও।

উত্তর: ক. প্রতিবর্ত চক্র: যে ক্রিয়া অনুভূতির উত্তেজনা দ্বারা উত্পন্ন হয়, মস্তিষ্ক দ্বারা চালিত হয় না তাকেই প্রতিবর্ত ক্রিয়া বলে।

খ. যে বস্তুটি কোষে উত্পন্ন হয়ে উত্পত্তি স্থল থেকে বাহিত হয়ে দূরবর্তী স্থানের কোষের কার্যাবলি নিয়ন্ত্রণ করে তাই হরমোন। উদ্ভিদের সকল কাজ নিয়ন্ত্রণ ও কার্য সম্পাদনে হরমোন কাজ করে। উদ্ভিদের যেসব হরমোন পাওয়া যায়, তাহলো- অক্সিন, জিব্বেরেলিন ও সাইটোকাইনিন। অক্সিন ও অন্যান্য হরমোন শাখাকলমে মূল উত্পাদন সাহায্য করে। ইন্ডোল অ্যাসোটিক এসিড ক্ষতস্থান পূরণে সাহায্য করে। অক্সিন প্রয়োগে শাখা কলমে মূল গজায়, ফলের অকাল ঝরেপড়া রোধ করে।

গ. নূরজাহান বেগমের হাতে সূঁচ ফোটা ও হাত তাত্ক্ষণিকভাবে সরিয়ে নেয়ার ঘটনার বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণ নিম্নরূপ-

মানবদেহ অসংখ্য বিশেষ কোষ দ্বারা গঠিত। কোষ দেহগুলোর সাথে মস্তিষ্কের নিউরনের সম্পর্ক ওতপ্রোতভাবে জড়িত। এই নিউরনের সাহায্যে তাড়না প্রবাহিত হয়। কাজেই নূরজাহান বেগমের হাতে সূঁচ ফোটার ঘটনা তাত্ক্ষনিকভাবে মস্তিষ্কে প্রেরণ করে। নূরজাহান বেগম কিছু বোঝে ওঠার আগেই স্নায়ুর নির্দেশনা অনুযায়ী তাত্ক্ষণিকভাবে হাতটিকে সরিয়ে নেয়। এভাবে উদ্দীপকের ঘটনাটি ঘটে।

(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

ঘ. নূরজাহান বেগমের সূঁচ ফোটার অনুভূতিবাহী টিস্যুটি হলো নিউরন। নিউরন মানবদেহের অপরিহার্য টিস্যু। নিচে এর গুরুত্ব বিশ্লেষণ করা হলো-

মানবদেহের ভেতরে ও বাইরের পরিবেশের সাথে সংযোগ রাখতে, মানবদেহের বিভিন্ন অঙ্গের মধ্যে কাজের সমন্বয় সাধনে, মস্তিষ্কে স্মৃতি সংরক্ষণে, চিন্তা চেতনা ও বিভিন্ন কাজের নির্দেশ নিতে প্রয়োজনীয় উদ্দীপন নিউরনের মাধ্যমে প্রবাহিত হয়।

একটি স্নায়ুকোষের অক্সিন অন্য স্নায়ুকোষের ডেনড্রাইনের সাথে মিলিত হয়ে সিন্যাপ্স উত্পত্তি ঘটায়। আর এই সিন্যাপ্স এর মাধ্যমে স্নায়ুু তাড়না আবেগ বিভিন্ন নিউরনে প্রবাহিত করে এবং দেহের বিভিন্ন অঙ্গের কাজের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে। কাজেই নিউরন টিস্যু প্রাণিদেহে অপরিহার্য।

লেখক-

মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন, সিনিয়র শিক্ষক

দুলালপুর এস.এম.অ্যান্ড কে. উচ্চ বিদ্যালয়, কুমিল্লা

এই বিভাগের আরও খবরঃ