website page counter ৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে বাংলাদেশ - শিক্ষাবার্তা ডট কম

রবিবার, ২৪শে আগস্ট, ২০১৯ ইং, ১০ই ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

৪ উইকেট হারিয়ে বিপদে বাংলাদেশ

৩১৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৩০ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে খাদের কিনারায় টিম টাইগার। তামিম-মিঠুনের পর সাজঘরে ফিরেছেন সৌম্যও। ক্রিজে দুই নতুন ব্যাটসম্যান মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ।

ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বের হতে পারছেন না টাইগার ওপেনার তামিম ইকবাল। বিশ্বকাপে বাজে পারফরম্যান্সের পর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নতুন করে শুরু করতে চেয়েছিল বাংলাদেশের সেরা এই ওপেনার। কিন্তু ৩১৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুন্য রানেই ফিরতে হয়েছে তামিমকে। বাংলাদেশকে বড় রানের টার্গেট দিয়ে নিজের শেষ ম্যাচে শুরুতেই বল হাতে নিয়েছেন লঙ্কান কিংবদন্তি মালিঙ্গা। প্রথম ৪ বল ডট দিয়ে ৫ম বলে দুর্দান্ত এক ইয়র্কারে বোল্ড করেন তামিমকে।

দলীয় ৩০ রানের মাথায় নুয়ান প্রদীপের বলে এলবির ফাঁদে পড়েন মোহাম্মদ মিঠুন। রিভিউ নিয়ে বাঁচতে পারেননি। সাজঘরে ফেরার আগে তিনি করেন ২১ বলে ১০ রান। স্কোরকার্ডে আর কোন রান যোগ না হতেই বিদায় নেন আরেক ওপেনার সৌম্য সরকার। মালিঙ্গার ডেলিভারিতে বোল্ড হওয়ার আগে সৌম্য ২২ বলে করেন ১৫ রান। দলীয় ৩৯ রানে ফিরেছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

লংকা-বাংলা তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে সফরকারী বাংলাদেশকে ৩১৫ রানের টার্গেট দিয়েছে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা। শুরুতে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩১৪ রান।

ফিল্ডিংয়ে নেমে টাইগার অধিনায়ক তামিম ইকবাল বোলিং আক্রমণে আনেন পেসার শফিউল ইসলামকে। তিনি নিজের দ্বিতীয় ওভারের পঞ্চম বলে ফিরিয়ে দেন ওপেনার আভিস্কা ফার্নান্দোকে। স্লিপে দাঁড়ানো সৌম্য সরকারের তালুবন্দি হওয়ার আগে ফার্নান্দো ১৩ বলে করেন ৭ রান। দলীয় ১০ রানের মাথায় প্রথম উইকেট হারায় লঙ্কানরা।

এরপর দিমুথ করুনারত্নে ও কুশল পেরেরার আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে শুরুর ধাক্কা সামলে উঠেছে শ্রীলঙ্কা। এই দুই ব্যাটসম্যানের জুটিতে রান এসেছে ৯৭। বাংলাদেশ যখন উইকেট তুলতে হিমশিম খাচ্ছিল তখন করুনারত্নকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙলেন মিরাজ। দলীয় ১০৭ রানে মিরাজের বলে মোস্তাফিজের ক্যাচ হয়ে ব্যক্তিগত ৩৬ রানে ফিরেন এই ওপেনার।

শুরু থেকেই বেশ আগ্রাসী ব্যাট করছেন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান কুশল পেরেরা ও কুশল মেন্ডিস। জুটিও গড়েছেন দারুণ। সে জুটি ভাঙার দারুণ সুযোগ হাতছাড়া করলেন মাহমুদউল্লাহ। সৌম্য সরকারের বলে বাউন্ডারি হাঁকাতে চেয়েছিলেন মেন্ডিস। কিন্তু ঠিকভাবে করতে না পারায় ক্যাচ উঠে যায়। কিন্তু সে ক্যাচ ধরতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ। ফলে সহজ জীবন পেলেন মেন্ডিস। এ সময় ২৮ রানে ব্যাট করছিলেন তিনি।

প্রথম উইকেটের পতনের পর মাঠে নেমেছিলেন কুশাল পেরেরা। দারুণ ব্যাটিংয়ে শ্রীলঙ্কার ইনিংসকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। নিজেও ছুঁয়েছেন তিন অঙ্কের ম্যাজিক ফিগারে। মাত্র ৮২ বলে এসেছে তার সেঞ্চুরি। এ রান করতে ১৭টি চার ও ১টি ছক্কা মেরেছেন তিনি। ক্যারিয়ারে এটা তার পঞ্চম ওয়ানডে সেঞ্চুরি। ইনিংসের ৩৩তম ওভারে সৌম্য সরকারের বলে মোস্তাফিজের হাতে ধরা পড়েন তিনি।

ইনিংসের ৩৪তম ওভার, রুবেল হোসেনের বল কুশাল মেন্ডিসের ব্যাটে আলতো স্পর্শ করে বল গেছে মুশফিকের গ্লাভসে। বোলার কিংবা উইকেটরক্ষক কারও আবেদন জোরালো ছিল না। আম্পায়ারও আমলে নিলেন না বিষয়টি। এরপরও মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে গেলেন কুশল মেন্ডিস! আম্পায়ার আউট না দিলেও মেন্ডিস ঠিকই জানতেন বল তার ব্যাট ছুঁয়ে গেছে মুশফিকের গ্লাভসে। এতে ভদ্রতার জলন্ত উদাহরণ দিয়েছেন লঙ্কান এই ব্যাটসম্যান। ৪৯ বলে চারটি চারের সাহায্যে ৪৩ রান করেন কুশল মেন্ডিস।

এরপর স্কোরবোর্ডে আরও ৬০ রান যোগ করেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস এবং লাহিরু থিরিমান্নে। মোস্তাফিজের বলে সৌম্য সরকারের তালুবন্দি হন ৩০ বলে ২৫ রান করা থিরিমান্নে। শফিউল দ্রুত ফিরিয়ে দেন থিসারা পেরেরাকে (২)। এবারো ক্যাচ নেন সৌম্য সরকার।

দলীয় ৩০২ রানে মোস্তাফিজের বলে সাব্বিরের তালুবন্দি হন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস। ৫২ বলে ৪৮ রান করেন তিনি। স্কোরকার্ডে আর ৭ রান যোগ হতেই ধনঞ্জয়কে(১৮) ফিরিয়ে নিজের দ্বিতীয় উইকেট শিকার করেন শফিউল। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩১৪ রান। জিততে হলে বাংলাদেশের টার্গেট ৩১৫ রান।

শুক্রবার তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় দুপুর তিনটায় শুরু হয় ম্যাচটি। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করছে গাজী টিভি। সিরিজের বাকি দুই ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ২৮ এবং ৩১ জুলাই।

বাংলাদেশ একাদশ:

তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহিম, মোস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, সাব্বির রহমান, সৌম্য সরকার, মোসাদ্দেক হোসেন এবং শফিউল ইসলাম।

শ্রীলঙ্কা একাদশ:

দিমুথ করুনারত্নে (অধিনায়ক), কুশল পেরেরা, আভিস্কা ফার্নান্দো, কুশল মেন্ডিস, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস, লাহিরু থিরিমান্নে, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা, থিসারা পেরেরা, নুয়ান প্রদীপ, লাহিরু কুমারা এবং লাসিথ মালিঙ্গা।

এই বিভাগের আরও খবরঃ