অধিকার ও সত্যের পক্ষে

নকলে বাধা দেয়ায় শিক্ষিকাকে পেটালো এসএসসি পরীক্ষার্থীরা

 নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

এসএসসি পরীক্ষায় নকল করতে না দেয়ায় দায়িত্বরত এক শিক্ষিকাকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার ভোলার বাংলাবাজার ফাতেমা খানম বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

মারধরে ওই শিক্ষিকার চোখ, মুখসহ সমস্ত শরীরে ফুলে গেছে। তাকে আশংঙ্কাজনক অবস্থায় ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় হামলাকারী শিক্ষার্থীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন শিক্ষক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ শিক্ষকরা।

জানা যায়, শনিবার ভোলার বাংলাবাজার ফাতেমা খানম বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসএসসির গণিত বিষয়ের পরীক্ষা চলছিল। ওই কেন্দ্রের ৮নম্বর কক্ষে দৌলতখান উপজেলার জয়নুল আবেদিন ল্যাবরেটরি হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা আছমা খাতুন কক্ষ পরিদর্শক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

পরীক্ষা চলাকালীন পরীক্ষার্থীরা নকল করতে চাইলে আসমা খাতুন তাদেরকে বাধা দেয়। এ নিয়ে পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা বাধে। পরীক্ষা শেষে আসমা খাতুন উত্তরপত্র নিয়ে রুম থেকে বের হওয়ার সময় ওই রুমের পরীক্ষার্থীরা তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

এতে তার চিৎকারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও শিক্ষকরা তাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। বর্তমানে তিনি ভোলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় ভোলা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের যুগ্ম মহাসচিব অধ্যক্ষ রফিকুল ইসলাম বলেন, একজন শিক্ষকের ওপর প্রকৃত শিক্ষার্থীরা কখনও হামলা করতে পারে না। আমরা এ হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। হামলার সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।

এ বিষয়ে ভোলা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামাল হোসেন বলেন, ইতোমধ্যে পরীক্ষা সচিককে দিয়ে তদন্ত করা হয়েছে। দুইজন শিক্ষার্থী ওই শিক্ষকের ওপর হামলা করে। এ ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শিক্ষা বার্তা-আ.আ.হ/মৃধা

একই ধরনের আরও সংবাদ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.