অধিকার ও সত্যের পক্ষে

ক্রিস গেইলের বুঝি মন খারাপ হয়েছিল!

 নিজস্ব প্রতিবেদক ||

প্রতিপক্ষের সংগ্রহ দেখে ক্রিস গেইলের বুঝি মন খারাপ হয়েছিল! এই কটা রান তো ওরাই পারে। সে কারণেই কি না, তিনি দ্রুতই সাজঘরে ফিরে গেলেন। অন্যদের সুযোগ দিতেই যেন। মেহেদি মারুফ আর রিলে রুশো সুযোগটা কাজে লাগালেন। দুজন মিলেই রংপুর রাইডার্সকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিলেন।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে উড়িয়েই দিল রংপুর রাইডার্স। গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে ৯ উইকেটের দারুণ জয় পেয়েছে মাশরাফিবাহিনী। টস জিতে প্রথমে বোলিংয়ে নেমে ম্যাজিকই দেখালেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

একে একে তুলে নিলেন চারটি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট। মাশরাফির বোলিং তোপের মুখে পরাজয় স্বীকার করে মাঠ ছাড়েন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের তামিম ইকবাল (৪), এভিন লুইস (৮), ইমরুল কায়েস (২) এবং স্টিভেন স্মিথ (০)। মূলত প্রতিপক্ষের মূল শক্তিটাই ভেঙে গুঁড়িয়ে দেন অধিনায়ক মাশরাফি। তিন ম্যাচে মোট ৭ উইকেট শিকার করে রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক আছেন শিকারির তালিকার শীর্ষে। ৫ উইকেট শিকার করে দুইয়ে আছেন রংপুরেরই শফিউল ইসলাম। কুমিল্লার পক্ষে সর্বোচ্চ ২৫ রান করেন বুমবুম আফ্রিদি। এছাড়া কেউই দুই অঙ্কের রান সংগ্রহ করতে পারেননি।

এদিকে রংপুর রাইডার্সের পক্ষে মাশরাফি ছাড়াও দারুণ বোলিং করেন নাজমুল ইসলাম। তিনি ২০ রানে ৩টি উইকেট শিকার করেন। শফিউল ২টি এবং ফরহাদ রেজা একটি উইকেট শিকার করেন। ১৬.২ ওভার খেলে মাত্র ৬৩ রানেই শেষ হয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের ইনিংস। জবাব দিতে নেমে শুরুতেই ক্যারিবীয় ঝড় ক্রিস গেইল (১) আবু হায়দারের বলে আউট হলেও রংপুর রাইডার্সকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন মেহেদি মারুফ (৩৬*) এবং রিলে রুশো (২০*)। রিলে ১০৩ রান সংগ্রহ করেছেন তিন ম্যাচে। রান সংগ্রহের তালিকায় তিনি আছেন দুইয়ে। শীর্ষে আছেন ঢাকা ডায়নামাইটসের হজরতউল্লাহ জাজাই (১৩৫)। মাত্র ১২ ওভারেই জয় তুলে নেয় রংপুর রাইডার্স। দারুণ এই জয়ে পয়েন্ট তালিকার দুইয়ে উঠে এসেছে রংপুর রাইডার্স। তিন ম্যাচে দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করেছে তারা। ২ ম্যাচে দুই জয়ে ৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করে রান রেটে এগিয়ে থাকায় শীর্ষে আছে ঢাকা ডায়নামাইটস।

একই ধরনের আরও সংবাদ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.