অধিকার ও সত্যের পক্ষে

প্রশিক্ষণে জোর দেবেন নতুন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

 নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

যুব ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেয়েছেন গাজীপুর-২ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য জাহিদ আহসান রাসেল। তিনি বর্তমান সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় কমিটির সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন ৮ বছর। এখন প্রতিমন্ত্রী হয়ে নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে মাঠে নামতে চান তিনি। একটা পরিবর্তন বা নতুন কিছু উপহার দেওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন জাহিদ আহসান রাসেল।

গতকাল তিনি সংবাদ মাধ্যমের সঙ্গে খেলাধুলার বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন। জানিয়েছেন প্রশিক্ষণের উপর জোর দেবেন। ক্রীড়াবিদদের প্রশিক্ষণকে গুরুত্ব দিয়ে এগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করবেন। এর জন্য বড় বাজেট দরকার। জাহিদ আহসান রাসেল বললেন, ‘ক্রীড়াঙ্গনে যে বাজেট বরাদ্দ থাকে তা দিয়ে সব খেলাধুলার আয়োজন করাও সম্ভব নয়। থোক বরাদ্দ দিয়ে হবে না। স্থায়ী বাজেট বাড়াতে হবে।’

রাসেল জানিয়েছেন, ‘আমাদের সরকারের ইশতেহারে তরুণদের উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। আড়াই কোটি তরুণ ভোটার।’ এদের কর্মসংস্থানের উপর জোর দেবে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী।

দেশের ফুটবল নিয়েও কথা বলেছেন এই প্রতিমন্ত্রী। দেশের এতো জনপ্রিয় খেলা ফুটবল পিছিয়ে যাচ্ছে তার দিকেও নজর দিতে চান। ফুটবলে নিজস্ব স্টেডিয়াম দরকার। সেই অনুভব হতে সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘অবশ্যই ফুটবলে আলাদা স্টেডিয়াম থাকা দরকার। প্রত্যেক বিভাগেও ফুটবল স্টেডিয়াম থাকা দরকার।’

ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন প্রকল্প রয়েছে। উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের কাজ এখনও চলমান। সেগুলো এগিয়ে নেওয়ার কথা জানিয়েছেন। পূর্বাচলে ক্রিকেট স্টেডিয়াম হবে। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামের সংস্কার কাজ হবে। বিদ্যমান যেসব স্টেডিয়াম রয়েছে সেগুলোর সঠিক রক্ষণাবেক্ষণে সংস্কার কাজ করার দরকার। যা কিছুই করা হোক অর্থের সঠিক ব্যবহারের কথা খেয়াল রাখার কথা বলেছেন তিনি।

ফুটবল ক্রিকেটের বাইরের খেলা নিয়েও কথা বলেন রাসেল। এবারই প্রথম এশিয়ান গেমস গিয়ে বাংলাদেশ শূন্য হাতে ফিরে এসেছে। সেটি ব্যথিত করে নতুন প্রতিমন্ত্রীকে। জানিয়েছেন এশিয়ান গেমসের ব্যর্থতা কেন হলো তা দেখতে হবে।

ফেডারেশনেরও রয়েছে নানা অনিয়ম। সংগঠকদের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক নেই। যার প্রভাব মাঠের খেলায় পড়ছে। রাসেল জানিয়েছেন তিনি দায়িত্ব নিয়ে দেখবেন কোন ফেডারেশনের কি অবস্থা। সংশ্লিষ্ট ফেডারেশনের সংগঠকদের নিয়ে বসবেন কথা বলবেন।

তবে এই প্রতিমন্ত্রী বলেছেন, ‘ক্রীড়াঙ্গনে গণতান্ত্রিক ধারা বজায় থাকবে।’

শিক্ষা বার্তা-আ.আ.হ/মৃধা

একই ধরনের আরও সংবাদ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.