অধিকার ও সত্যের পক্ষে

ইতিহাসের এই দিনে || শিল্পাচার্য জয়নুলের জন্ম

শিক্ষাবার্তা ডেস্ক ||

ইতিহাস আজীবন কথা বলে। ইতিহাস মানুষকে ভাবায়, তাড়িত করে। প্রতিদিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা কালক্রমে রূপ নেয় ইতিহাসে। সেসব ঘটনাই ইতিহাসে স্থান পায়, যা কিছু ভালো, যা কিছু প্রথম, যা কিছু মানবসভ্যতার অভিশাপ-আশীর্বাদ।

তাই ইতিহাসের দিনপঞ্জি মানুষের কাছে সব সময় গুরুত্ব বহন করে। এই গুরুত্বের কথা মাথায় রেখে বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য নিয়মিত আয়োজন ‘ইতিহাসের এই দিন’।

২৯ ডিসেম্বর ২০১৮, শনিবার। ১৫ পৌষ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ। এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের এদিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনা
১৭৭৮- আমেরিকার স্বাধীনতা যুদ্ধ চলার সময় সাড়ে তিন হাজার ব্রিটিশ সৈন্যসহ লেফটেন্যান্ট কর্নেল আর্চবেল্ড ক্যামবেল জর্জিয়ায় বন্দি হন।
১৮৮০- কলকাতায় প্রথম ট্রাম চালু।
১৯১১- সান ইয়াৎ সেন চীনের অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি হিসেবে নিয়োগ পান।
১৯১১- খান সাম্রাজ্য থেকে মঙ্গোলিয়ার স্বাধীনতা লাভ।
১৯৩০- স্যার মো. ইকবাল দুই দেশ ভাগ করা ও পাকিস্তান নির্মাণের জন্য একটা রূপরেখা প্রকাশ করেন।
১৯৬৪- চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন।
১৯৮৮- ইসলামাবাদে চতুর্থ সার্ক সম্মেলন অনুষ্ঠিত।

জন্ম
১৮০৮- মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ১৭তম রাষ্ট্রপতি এন্ড্রু জন‌সন।
১৮৬৩- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম প্রধান প্রতিষ্ঠাতা সৈয়দ নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী।
১৮৭৩- সংগীতশিল্পী, লেখক ও অনুবাদক ইন্দিরা দেবী চৌধুরানী।

১৯১৪- প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী জয়নুল আবেদীন।

১৯১৪ সালের ২৯ ডিসেম্বর তৎকালীন ময়মনসিংহ জেলার কিশোরগঞ্জ মহুকুমার কেন্দুয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। ছেলেবেলা থেকেই শিল্পকলার প্রতি তার গভীর আগ্রহ ছিল। ১৯৩৩ থেকে ১৯৩৮ সাল পর্যন্ত কলকাতার সরকারি আর্ট স্কুলে পড়েন। জয়নুল আবেদিনের উদ্যোগে ১৯৪৮ সালে পুরান ঢাকার জনসন রোডের ন্যাশনাল মেডিকেল স্কুলের একটি জীর্ণ গভর্নমেন্ট আর্ট ইন্সটিটিউট স্থাপিত হয়। সূচনায় এতে ছাত্র সংখ্যা ছিল মাত্র ১৮ জন। জয়নুল আবেদীন ছিলেন এ প্রতিষ্ঠানের প্রথম শিক্ষক। ১৯৫৬ সালে আর্ট ইন্সটিটিউটটি শাহবাগে স্থানান্তরিত হয় এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর এ প্রতিষ্ঠানের নাম পরিবর্তন করে রাখা হয় ‘বাংলাদেশ চারু ও কারুকলা মহাবিদ্যালয়’। বাংলাদেশে চিত্রশিল্প বিষয়ক শিক্ষার প্রসারে আমৃত্যু প্রচেষ্টার জন্য তিনি শিল্পাচার্য অভিধা লাভ করেন। ১৯৪৩ সালে দুর্ভিক্ষ চিত্রমালার জন্য জয়নুল আবেদীন বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেন। এ ছাড়াও তার বিখ্যাত শিল্পকর্মগুলোর মধ্যে- নৌকা, সংগ্রাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা, ম্যাডোনা প্রভৃ‌তি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। তার দীর্ঘ দু’টি স্ক্রল ‘নবান্ন’ এবং ‘মনপুরা-৭০’ জননন্দিত দু’টি শিল্পকর্ম। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরে সংগৃহীত তার শিল্পকর্মের সংখ্যা ৮০৭। বেঙ্গল ফাউন্ডেশানের সংগ্রহে আরো প্রায় পাঁচশ চিত্রকর্ম সংরক্ষিত রয়েছে। ১৯৭৬ সালের ১৯ মে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।
১৯৪০ – শামসুজ্জামান খান, বাংলাদেশি লোক সংস্কৃতি ও পল্লীসাহিত্য গবেষক। তিনি বর্তমানে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হিসাবে কর্মরত রয়েছেন।

১৯৪৯- ভারতীয় ক্রিকেটার সৈয়দ কিরমানি।
১৯৬০- অস্ট্রোলিয়ান ক্রিকেটার ডেভিড বুন।

মৃত্যু
১৯৯৫- বাংলাদেশি সাংবাদিক মোনাজাতউদ্দিন।

একই ধরনের আরও সংবাদ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.