৪০ বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

উপাচার্য ছাড়াই চলছে দেশের ৪০টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) বলছে, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ভিসি নিয়োগের তাগিদ দেওয়া হলেও তারা তা মানছেন না। এছাড়া ভিন্ন কৌশলে তারা একই ব্যক্তিকে দীর্ঘ সময়ের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে রেখে দিচ্ছেন। তাদের এই কৌশলের কাছে ইউজিসি অসহায়।

গত বছরের ১২ ডিসেম্বর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

তথ্যমতে, দেশে বর্তমানে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা ১০৯টি। ৪০টি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনের সর্বোচ্চ কর্তাব্যক্তির পদটি শূন্য রয়েছে। এর মধ্যে ২১টি বিশ্ববিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন ধরে উপাচার্য নেই। এছাড়া ১৮টি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্যের মেয়াদ উত্তীর্ণ হলেও নতুন করে উপাচার্য নিয়োগ হয়নি। আর একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদত্যাগ করেছেন।

ইউজিসি জানিয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে বার বার উপাচার্য নিয়োগের তাগাদা দেওয়ার পরও তারা এই পদে কাউকে নিয়োগ দিচ্ছেন না। এর পেছনে বিশ্ববিদ্যালয় ট্রাস্টিদের কর্তৃত্ব বজায় রাখতে চাওয়ার মনোভাব দায়ী। উপাচার্য না থাকায় অনেক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর এখন পর্যন্ত কোনো সমাবর্তন আয়োজন করতে পারেনি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইউজিসির এক কর্মকর্তা দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসকে বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো মনে করে ‘আমরা আমাদের টাকায় উপাচার্য নিয়োগ দিয়েছি। আমরা যা বলবো তারা তাই করবে। রেগুলার ভিসি নিয়োগ হলে তাদের হাত থেকে কর্তৃত্ব চলে যেতে পারে। এই ভয়েই নিয়মিত উপাচার্য নিয়োগ হচ্ছে না।’

জানতে চাইলে ইউজিসি পরিচালক (বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়) ড. ওমর ফারুক বলেন, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের গুরুত্বপূর্ণ শূন্য পদগুলো পূরণের জন্য আমরা বার বার তাগাদা দিচ্ছি। এই পদগুলো পূরণ না হলে একটি বিশ্ববিদ্যালয় ভালোভাবে পরিচালনা করা সম্ভব হবে না বলেও জানান তিনি।

উপাচার্য ছাড়াই চলছে যে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো
সেন্ট্রাল উইমেন্স ইউনিভার্সিটি, আমারেকিনান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, গণ বিশ্ববিদ্যালয়, দি পিপল’স ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি, প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি, স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি, সিটি ইউনিভার্সিটি, গ্রিন ইউনিভার্সিটি, শান্ত-মরিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি, ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি, ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব সাউথ এশিয়া, ভিক্টোরিয়ার ইউনিভার্সিটি, প্রেসিডেন্সি ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব ইনফরমেশন টেকনোলজি এন্ড সায়েন্সেস, প্রাইমএশিয়া ইউনিভার্সিটি, আশা ইউনিভার্সিটি, ইস্ট ডেল্টা ইউনিভার্সিটি, ফার্স্ট ক্যাপিটাল ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, ব্রিটানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব হেলথ সায়েন্সেস, চিটাগাং ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, নর্থ বেঙ্গল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, জার্মান ইউনিভার্সিটি, সিসিএন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি, এনপি আই ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, নর্দান ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস এন্ড টেকনোলজি, ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি, রূপায়ন এ কে এম শামসুজ্জোহা বিশ্ববিদ্যালয়, জেড এন আর এফ ইউনিভার্সিটি অব ম্যানেজমেন্ট সায়েন্সেস, খান বাহাদুর আহছানউল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়, শাহ মখদুম ম্যানেজমেন্ট ইউনিভার্সিটি, ট্রাস্ট ইউনিভার্সিটি, আরটিএম আল-কবির টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি, শেখ হাসিনা ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি, চট্টগ্রাম বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি এবং দি ইউনিভার্সিটি অব কুমিল্লা।