৩য় থেকে ৯ম শ্রেণির ভর্তিতে থাকবেনা বয়সের সীমাবদ্ধতা

অনলাইন ডেস্ক।।

তৃতীয় শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থী ভর্তির বিষয়ে বয়সের বাধ্যবাধকতা আরোপ না করার নির্দেশনা দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা (মাউশি) অধিদফতর। এছাড়া অনলাইনে আবেদন না করা এবং একাধিকবার আবেদন করা শিক্ষার্থীকে ভর্তি না করানোর নির্দেশনা দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর।

তবে নিয়ম অনুযায়ী প্রথম শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তির বয়স ৬+ এবং দ্বিতীয় শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তি ৭+ বছর বয়সের শর্ত বহাল থাকবে। শুধু তৃতীয় শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থী ভর্তির বিষয়ে বয়সের বাধ্যবাধকতা আরোপ করতে পারবে না কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা (মাউশি) অধিদফতর সহকারী পরিচালক দুর্গা রাণী সিকদারের গত ১৪ ডিসেম্বর সই করা নির্দেশনাটি মঙ্গলবার (২০ ডিসেম্বর) জারি করা হয়। অফিস আদেশে সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের নির্দেশনা অনুসরণ করার কথা বলা হয়।

প্রতিষ্ঠান প্রধানদের যা করতে হবে

১. ২০২৩ শিক্ষাবর্ষে কেন্দ্রীয় ডিজিটাল লটারির আওতাভুক্ত সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা gsa.teletalk.com.bd লিংকে প্রবেশ করে প্রতিষ্ঠানের ইউজার ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে ডাউনলোড অপশনে ক্লিক করবেন। ক্লিক করার পর প্রতিষ্ঠানে আবেদনকারীদের তালিকা পেয়ে যাবেন। ডিজিটাল লটারিতে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের জন্য নির্বাচিত প্রথম তালিকা এবং প্রথম অপেক্ষমাণ তালিকার শিক্ষার্থীদের আবেদন সংক্রান্ত তথ্য এই লিংক থেকে যাচাই করতে পারবেন। লিংকে নাম তথ্যাদি টাইপ করে সাবমিট করলে আবেদনকারী কতবার আবেদন করেছে তা জানা যাবে। এক্ষেত্রে কোনও আবেদনকারী তথ্য পরিবর্তন করে একাধিকবার আবেদন করে থাকলে ডিজিটাল লটারিতে তার ভর্তির নির্বাচন বাতিল বলে গণ্য হবে। কেননা ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে একই পছন্দক্রমে একাধিকবার আবেদন করা যাবে না মর্মে উল্লেখ ছিল। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তাদের ওয়েবসাইটে এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নোটিশ বোর্ডে প্রথম অপেক্ষমাণ তালিকা পত্র পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই দেখতে পারবেন।

২. সরকারি ও বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ডিজিটাল লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত বৈধ প্রার্থী ছাড়া সংশ্লিষ্ট ভর্তি কমিটি অথবা প্রতিষ্ঠান প্রধান কোনও শিক্ষার্থীকে ভর্তি করাতে পারবেন না।

৩. ডিজিটাল লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত সরকারি ও বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের বয়স নির্ধারণের ক্ষেত্রে প্রথম শ্রেণির জন্য ৬+ বছর এবং দ্বিতীয় শ্রেণির জন্য ৭+ বছর প্রযোজ্য হবে। অন্য শ্রেণির ক্ষেত্রে এই শর্ত প্রযোজ্য নয়।

৪. বেসরকারি স্কুল, স্কুল অ্যান্ড কলেজে (মাধ্যমিক, নিম্ন মাধ্যমিক ও সংযুক্ত প্রাথমিক স্তর) শিক্ষার্থী ভর্তি নীতিমালায় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক/কর্মচারীদের অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্ট তহবিলের জন্য ভর্তিকালীন সময়ে শিক্ষার্থী প্রতি ১০০ টাকা নিয়ে সংশ্লিষ্ট হিসাব খাতে জমা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠান প্রধানরা অবসর ও কল্যাণ ট্রাস্ট তহবিলের জন্য ভর্তির সময় শিক্ষার্থী প্রতি ১০০ টাকা নিয়ে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের তহবিলে/ব্যাংক হিসাবে জমা রাখবেন।