১ দিনেই পাল্টেছে দৌলতদিয়া- পাটুরিয়ার চিরচেনা রুপ

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

পদ্মা সেতু উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে স্বস্তি ফিরেছে মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ও রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাটে। পাল্টে গেছে পুরো ঘাটের চিত্র। ভোগান্তির ঘাটে হাসি ফুটেছে যাত্রী ও চালকের মুখে। হাজার গাড়ি ও যাত্রীদের কোলাহলমুক্ত হয়েছে দৌলতদিয়া ঘাট। আগে ফেরির জন্য দিনের পর দিন অপেক্ষা করতে হতো, আর এখন ফেরিই গাড়ির অপেক্ষায় বসে থাকছে।

জানা গেছে, কোনোপ্রকার ভোগান্তি ছাড়াই ফেরির নাগাল পেয়ে খুশি দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাটের যাত্রী ও চালকরা। মাত্র ১০-১৫ মিনিটের মধ্যেই ফেরির নাগাল পাচ্ছে বাস ও ট্রাক। এজন্য তাদের ধরতে হচ্ছে না কোনো দালাল চক্র।

রোববার সরেজমিনে দেখা গেছে, ভোর থেকেই দৌলতদিয়া ঘাটে যানবাহনের কোনো সারি নেই। আগে যেখানে প্রতিদিনই ৪-৫ কিলোমিটার যানজট থাকত, সেখানে আজ ঘাট ফাঁকা। বাস খুবই কম আসছে। যেগু‌লো আসছে ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষা করেই ফেরি
পার হ‌য়ে যাচ্ছে।

চালকরা বলেন, এখন স্বপ্নের পদ্মা সেতু দিয়ে বেশির ভাগ যানবাহন পার হবে। এতে যাত্রী দুর্ভোগ যেমন কমবে তেমনি নষ্ট হবে না কাঁচামাল। বর্ষা কিংবা কুয়াশায়ও হবে না দুর্ভোগ।

বিআইডব্লিউটিসি দৌলতদিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক প্রফুল্ল চৌহান জানান, গতকাল পর্যন্ত দৌলতদিয়া ঘাটে যানবাহনের চাপ ছিল। কিন্তু আজ রোববার সকাল থেকে পদ্মা সেতু দিয়ে যান চলাচল শুরু হওয়ার পর থেকে এই রুটে আগের মতো চাপ নেই। ১০-১৫ মিনিট অপেক্ষা করেই যানবাহন ফেরির দেখা পাচ্ছে। পদ্মা সেতু চালু হওয়ায় দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটের চিরচেনা রূপ এক দিনেই পাল্টে গেছে।

তিনি আরো বলেন, সকাল থেকেই এই রুটে ব্যক্তিগত গাড়ি ও ট্রাকের চাপ কম দেখা গেছে। বেশির ভাগ ছোট গাড়ি পদ্মা সেতু দিয়ে পার হওয়াতে দৌলতদিয়া ঘাটের ভোগান্তি অনেকটা কমেছে। বর্তমানে এই রুটে ১৭টি ফেরি চলাচল করছে।