হিযবুত তাহরীর সদস্যের তথ্যে গ্রেপ্তার মাধ্যমিক শিক্ষক

চট্টগ্রামঃ জেলায় পোস্টার লাগানোর সময় নিষিদ্ধ সংগঠন হিযবুত তাহরীরের এক সদস্যকে হাতেনাতে ধরা পড়েছেন। পরে তার তথ্যে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এক স্কুল শিক্ষককে।

বুধবার রাতে নগরীর আসকারদিঘীর পাড় এলাকায় ধরা পড়েন আবু হাসান মো. তানভীর নামের যুবক। পরদির গ্রেপ্তার করা হয় শিক্ষক শহীদুল ইসলামকে।

২৮ বছর বয়সী আবু হাসানের বাড়ি বাঁশখালী উপজেলার গুনাগরিতে। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগ থেকে দুই বছর আগে এমবিএ পাস করেছেন।

৩২ বছর বয়সী শহীদুল ইসলাম নগরীর ইস্পাহানি পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজের মাধ্যমিক শাখার শিক্ষক। তিনিও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়াশোনা করেছেন। তার বাড়িও বাঁশখালী উপজেলায়। তাকে স্কুল থেকেই ধরা হয়েছে।

চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (কোতোয়ালি জোন) অতুনু চক্রবর্ত্তী জানান, আটক দুই জন জিজ্ঞাসাবাদে শহীদুল ও আদিল নামে আরও দুই জনের নাম প্রকাশ করেছেন।

বিশেষ ক্ষমতা আইনে তিন জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও কয়েক জনকে আসামি করে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করার কথা জানিয়ে কোতোয়ালী থানার এসআই মোমিনুল হাসান জানান, তানভীর ও শহীদুল দুই জনই চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠনটির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন।

১৯৫৩ সালে জেরুজালেমে হিযবুত তাহরীরের যাত্রা শুরু। এর প্রতিষ্ঠাতার নাম তকিউদ্দিন আল নাভানী। বিশ্বের প্রায় ৪০টি দেশে এই সংগঠন সক্রিয় আছে।

বাংলাদেশে হিযবুতের তৎপরতা শুরু ২০০০ সালের কিছু পরে। ২০০৯ সালের অক্টোবরে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে। তবে ১৪ বছর পরও কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে তারা। বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ও পেশাজীবীরা শুরু থেকেই এই সংগঠনের সঙ্গে সম্পৃক্ত।

আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বলছেন, হিযবুত তাহরীর প্রচলিত রাষ্ট্র ব্যবস্থার বিপরীতে ইসলামী খিলাফত রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখে।

শিক্ষাবার্তা ডট কম/এএইচএম/১৯/১০/২০২৩   

দেশ বিদেশের শিক্ষা, পড়ালেখা, ক্যারিয়ার সম্পর্কিত সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম, ছবি, ভিডিও প্রতিবেদন সবার আগে দেখতে চোখ রাখুন শিক্ষাবার্তায়