হিন্দুদের সৎকার করে তাবলীগ জামাত প্রশংসিত ভারতে

প্রকাশিত: ৪:০৭ পূর্বাহ্ণ, মঙ্গল, ১১ মে ২১

অনলাইন ডেস্ক।।

গত বছর করোনা পরিস্থিতিতে ভারতের নিজামউদ্দিন মার্কাজে সমাবেশ করে বেশজুড়ে সমালোচিত হয়েছিলেন তবলিগি জামাতের সদস্যরা। কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে যখন জেরবার ভারত, তখন সাধারণ মানুষের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসছেন জামাতের সদস্যরাই। ধর্ম নির্বিশেষে করোনায় মৃতদের সৎকার করছেন তবলিগি জামাতের সদস্যরা।

অন্ধ্রপ্রদেশের তিরুপতিতে তবলিগি জামাতের সদস্য জি এম ডি গাউস জানান, ২০২০ সালে তিরুপতি মুসলিম অ্যাসোসিয়েশের সঙ্গে যৌথভাবে তারা একটি কমিটি গঠন করে। করোনা আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর পাশাপাশি করোনায় মৃতদের সৎকারের কাজও করেন তারা। গাউস জানান, অনেক সময় করোনায় মৃত্যু হলে দেহ সৎকারের জন্য সাহায্য পান না পরিবারের লোকজন। সেই সময় তবলিগি জামাতের স্বেচ্ছাসেবকরা তাদের সাহায্যে এগিয়ে আসে। কোনও একটি নির্দিষ্ট ধর্মের মানুষদের জন্য নয়, এই পরিষেবা সকলের জন্য, জানান তিনি। করোনায় মৃতদের সৎকারের জন্য ৬০ জন স্বেচ্ছাসেবকের একটি দল গঠন করা হয়েছে। গাউসের কথায়, গত মাস থেকে এই দল প্রতিদিন ১৫টি দেহ সৎকার করে। তিনি বলেন, ‘করোনাভাইরাসের প্রথম ঢেউ মূলত বয়স্ক মানুষদের প্রাণ কেড়েছে। কিন্তু দ্বিতীয় ঢেউ আরও ভয়াবহ। বহু তরুণ প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে এই ভাইরাস।’ মৃতের ধর্ম মেনে দেহ দাহ করার ব্যবস্থাও করছেন তারা।

এক্ষেত্রে স্বেচ্ছাসেবকদের সুরক্ষার দিকেও দেয়া হচ্ছে বিশেষ নজর। গাউস জানান, এই স্বেচ্ছাসেবকদের প্রত্যেকেই পিপিই কিট পরে থাকেন। স্থানীয় পুলিশ, পুরসভাও তাদের সাহায্য করছে বলে দাবি তবলিগি জামাতের এই সদস্যের। গাউসের কথায়, গত বছর নিজামউদ্দিন মার্কাজে ঘটনায় তবলিগি জামাতে সদস্যরা সমালোচিত হয়েছিল। কিন্তু তাদের এই উদ্যোগের পর সাধারণ মানুষ তাদের প্রশংসা করছেন। প্রসঙ্গত, দিল্লিতে তবলিঘি জামাতের জমায়েত নিয়ে গত বছর উত্তাল হয়েছিল দেশ। দেশের মোট আক্রান্তের সংখ্যার একটা বিপুল অংশের সঙ্গে যোগ রয়েছে এই জমায়েতের, এমনই দাবি করে সমালোচনাও হয়েছিল দেশজুড়ে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.