হজের নিরাপত্তায় প্রথমবারের মতো নারী সেবা

প্রকাশিত: ১১:৫৬ পূর্বাহ্ণ, বৃহঃ, ২২ জুলাই ২১

অনলাইন ডেস্ক।।

সৌদি আরবে তৈরি হলো নতুন ইতিহাস। প্রথমবারের মতো হজের সময় মক্কায় নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করলেন নারী সেনারা। গত এপ্রিল থেকে মক্কা এবং মদিনায় নিরাপত্তার দায়িত্ব দক্ষতার সঙ্গে সামলেছেন একাধিক নারী। তেমনই একজন মোনা।
খাকি রঙের সামরিক পোশাকের সঙ্গে লম্বা জ্যাকেট, ঢিলেঢালা ট্রাউজার ও কালো কাপড়ে মাথার চুল ঢাকা মোনা মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদে নিরাপত্তা দায়িত্ব পালন করছেন।
রয়টার্সের বরাত দিয়ে মোনা জানিয়েছে, আমার বাবাও সেনাবাহিনীতে ছিলেন। সেনাসদস্য হতে তিনিই আমাকে অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন। আমি তার পদাঙ্ক অনুসরণ করছি। হাজিদের সেবা করতে পারাটা খুবই মহৎ এবং সম্মানের কাজ।
মোনার মতোই হাজিদের নিরাপত্তা রক্ষায় নিয়োজিত ছিলেন আরেক নারী সেনাসদস্য সামার। তিনি বলেন, সেনাসদস্য হতে পরিবারের সদস্যরা আমাকে ভীষণ উৎসাহ জুগিয়েছে।
সামার আরও বলেন, আমাদের কাছে হাজিদের নিরাপত্তা দেওয়া এটা অনেক বড় সাফল্য। ধর্ম, দেশ এবং আল্লাহর অতিথিদের কাজে নিয়োজিত থাকতে পারার মতো গর্ব আর কোথাও নেই।
গোড়া রক্ষণশীল সমাজ ব্যবস্থা থেকে ধীরে ধীরে বেরিয়ে আসছে সৌদি আরব। যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের হাত ধরে আসছে এই পরিবর্তন। দেশটিতে সামাজিক ও অর্থনৈতিক সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছেন তিনি।
এবার সৌদি আরবের অবস্থানরতদের মধ্য থেকে ৬০ হাজার মানুষকে হজের অনুমতির দেওয়া হয়। তথ্যসূত্র: রয়টার্স

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.