সোমবার থেকে অনশনে যাচ্ছে চারুকলার শিক্ষার্থীরা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়

শিক্ষাবার্তা ডেস্কঃ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) সিন্ডিকেটের বেঁধে দেওয়া সময়ের এক ঘণ্টার মধ্যেই হোস্টেল ও ক্যাম্পাস ত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন চারুকলা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা। তবে ক্যাম্পাস ছাড়লেও ইনস্টিটিউটকে মূল ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে নিতে আগামী সোমবার থেকে আমরণ অনশনের ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

গত বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে হোস্টেল ও ক্যাম্পাস ছেড়ে যান শিক্ষার্থীরা। ক্যাম্পাস ত্যাগের বিষয়টি কালবেলাকে নিশ্চিত করেছেন চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ফাহিম। তিনি বলেন, আমাদের রাত ১১টার দিকে ক্যাম্পাস ত্যাগে বাধ্য করা হয়। কর্তৃপক্ষ সরাসরি কোনো যোগাযোগ করেনি। হোয়াটসঅ্যাপে ক্যাম্পাস ত্যাগের নির্দেশনা জানানো হয়। এত রাতে আমরা কোথায় যাব, কোথায় থাকব, কোথায় খাব, সে কথা কেউ ভাবেনি।

ফাহিম বলেন, এ ছাড়া সিন্ডিকেট সভায় আমাদের মূল দাবি নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছি ক্যাম্পাস ছাড়লেও আন্দোলন চালিয়ে যাব। আগামী সোমবার থেকে আমরণ অনশনে যাব আমরা। অনশন কোথায় করব, তা আগামী সপ্তাহে জানাব।

গত বৃহস্পতিবার বিকেলে চারুকলা ইনস্টিটিউটের চলমান সংকট নিরসনে উপাচার্যের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত জরুরি সিন্ডিকেট সভায় এক মাসের জন্য ইনস্টিটিউট বন্ধ ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের রাত ১০টার মধ্যে ক্যাম্পাস ত্যাগেরও নির্দেশনা দেওয়া হয়।

চারুকলা ইনস্টিটিউট বন্ধের বিষয়টি কালবেলাকে নিশ্চিত করেন সিন্ডিকেট সদস্য আইসিটি সেলের প্রধান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম। তিনি বলেন, সংস্কার কাজের সুবিধার্থে এক মাসের জন্য চারুকলা ইনস্টিটিউট বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের রাত ১০টার মধ্যেই ক্যাম্পাস ও হোস্টেল ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছে সিন্ডিকেট। তিনি বলেন, তাছাড়া এই এক মাস শিক্ষার্থীদের পাঠদান অনলাইনে চলবে। পাশাপাশি এই সময়ের মধ্যে চারুকলার সংস্কার কাজ শেষ হবে। সংস্কার কাজ তদারকি করার জন্য শিগগির একটি কমিটি গঠন করা হবে।

এ বিষয়ে চারুকলার চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী খন্দকার মাশরুর কালবেলাকে বলেন, সিন্ডিকেট সভায় আমাদের মূল ক্যাম্পাসে স্থানান্তরের বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। সুতরাং আমরা আমাদের আন্দোলন চালিয়ে যাব। আগামী সপ্তাহ থেকে আমাদের আমরণ অনশন শুরু হবে।

গত বছরের ২ নভেম্বর থেকে চারুকলা ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা ২২ দাবিতে ক্লাস বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন। শুরুতে তাদের আন্দোলন ইনস্টিটিউটের সংস্কার দাবিতে শুরু হলেও পরবর্তী সময়ে তারা ইনস্টিটিউটকে মূল ক্যাম্পাসে স্থানান্তরের এক দফা দাবি জানাতে থাকেন।

টানা ৮২ দিন আন্দোলনের পর গত ২৩ জানুয়ারি শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ফিরলেও ৭ দিনের আলটিমেটাম শেষে ২৯ জানুয়ারি থেকে আবারও ক্লাস বর্জন করে আন্দোলন শুরু করে একাংশ। অপরদিকে একই দিন ইনস্টিটিটিউটের মূল ফটকে সংস্কার আন্দোলনকারীদের ফের তালা দেওয়ার প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষার্থীদের অপর একটি অংশ। এ সময় তারা ক্লাস চালু রাখার দাবি জানান।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাস শহর থেকে ২২ কিলোমিটার দূরে হাটহাজারীতে অবস্থিত। ২০১০ সালে চবি চারুকলা বিভাগ ও চট্টগ্রাম সরকারি চারুকলা কলেজকে একীভূত করার মধ্য দিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে একটি চারুকলা ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ২০১১ সালের ২ ফেব্রুয়ারি নগরীর বাদশাহ মিয়া চৌধুরী সড়কে বর্তমান চারুকলা ইনস্টিটিউটের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়।

শিক্ষাবার্তা ডট কম/এএইচএম/০৪/০২/২৩