সুন্দরগঞ্জে এক ট্রাক সরকারি বইসহ আটক ৩

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

এক ট্রাক সরকারি বই উদ্ধারের ঘটনায় গ্রেপ্তার গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কার্যালয়ের অফিস সহায়কসহ তিনজনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে গ্রেপ্তারদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

আসামিরা হলেন- সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মাজেদুর রহমান, ট্রাকচালক শ্যামল মিয়া ও তার সহকারী রাসেল মিয়া। মাজেদুর সুন্দরগঞ্জ পৌর এলাকার আবদুর রহমানের ছেলে। এ ছাড়া ট্রাকচালক ও তার সহকারী ঢাকার কেরানীগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা। এদিকে বই পাচার করে বিক্রির ঘটনায় শুধু অফিস সহায়ককে আসামি করে মামলা করায় জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষক বলেন, একজন অফিস সহায়ক কখনও একা এমন কাজ করতে পারেন না। বই পাচারের সঙ্গে মাধ্যমিক অফিসের আরও অনেকেই জড়িত থাকতে পারেন।

পুলিশ জানায়, চলতি শিক্ষাবর্ষের প্রায় সাড়ে ১১ হাজার নতুন বই সুন্দরগঞ্জ ডিডব্লিউ সরকারি ডিগ্রী কলেজের একটি কক্ষে রাখা হয়। রোববার রাতে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মাজেদুর রহমান এসব বই ট্রাকে করে সুন্দরগঞ্জ থেকে ঢাকায় পাচার করছিলেন। ট্রাকটি ওইদিন গভীর রাতে সিরাজগঞ্জ জেলার বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু এলাকায় পৌঁছে। এসময় সন্দেহ হলে যমুনা সেতু পশ্চিম থানা পুলিশ ট্রাকটি আটক করে। জিজ্ঞাসাবাদে ট্রাকের চালক শ্যামল মিয়া ও তার সহকারী রাসেল মিয়া পুলিশকে জানান, বইগুলো সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কার্যালয়ের অফিস সহায়ক মাজেদুর রহমানের কাছ থেকে সংগ্রহ করেছেন।

সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সরকার ইফতেখারুল মোকাদ্দেম বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তাররা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন। তাদেরকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ড চাওয়া হবে। এ ঘটনায় আরও কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এর আগে, ভোররাতে বইসহ ট্রাকচালক ও তার সহকারীকে সিরাজগঞ্জের যমুনা সেতু পশ্চিম থানা থেকে সুন্দরগঞ্জে আনা হয়। ট্রাক ও জব্দকৃত সরকারি বই সুন্দরগঞ্জ থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। এ নিয়ে সোমবার সুন্দরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মাহমুদ হোসেন মন্ডল।