সাগরে ধরা পড়েছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ

অনলাইন ডেস্ক।।

নিষেধাজ্ঞা শেষে বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরা শুরুর প্রথম দিনেই প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে জেলেদের জালে। এতে হাসি ফুটেছে দীর্ঘদিন বসে থাকা পটুয়াখালীর জেলেদের মুখে। সোমবার সাগর থেকে ট্রলার ও নৌকাবোঝাই ইলিশ নিয়ে ফেরেন জেলেরা। এতে কলাপাড়ার মহিপুর-আলীপুর মৎস্যবন্দর এবং রাঙ্গাবালীর চরমোন্তাজ ও মৌডুবি মৎস্যকেন্দ্রের আড়তগুলোয় চাঞ্চল্য ফিরেছে।

ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ ধরা পড়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন মৎস্য ব্যবসায়ী, জেলে, শ্রমিক ও ক্রেতারা। সবার মধ্যেই বইছে উৎসবের আমেজ। সামনের দিনগুলোয় প্রচুর ইলিশ ধরা পড়বে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

স্থানীয় বেলাল কোম্পানির এফবি সাইম ফিশিং বোটের মাঝি নয়া মিয়া বলেন, ‘বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার প্রথম দিনে আমরা ৭২ মণ মাছ পেয়েছি। বিক্রি করেছি ১৫ লাখ টাকায়। অন্য নৌকার জেলেরাও প্রচুর মাছ পেয়েছেন।’

মহিপুর মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ রাজা বলেন, ‘সাগরে পর্যাপ্ত মাছ আছে। নিষেধাজ্ঞা শেষের প্রথম দিনেই জেলেরা ভালো মাছ পেয়েছেন। বৈরী আবহাওয়া না হলে এ বছর সাগরে প্রচুর মাছ পাওয়া যাবে। এতে জেলেদের সমস্যারও সমাধান হবে।

মাছের সুষ্ঠু প্রজনন, উৎপাদন, মৎস্যসম্পদ সংরক্ষণ ও বংশবিস্তার নিশ্চিতে ২৩ জুলাই মধ্যরাত পর্যন্ত ৬৫ দিন বঙ্গোপসাগরে সব ধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ করে সরকার। সে অনুযায়ী জেলেরা মাছ ধরা থেকে বিরত থাকেন।

গত শনিবার মধ্যরাতে নিষেধাজ্ঞা শেষ হলে রোববার ভোর থেকে জেলেরা মাছ ধরতে পাড়ি দেন সাগরে। এ বছর জেলায় নিবন্ধিত ৭৮ হাজার ৬৮০ জেলে সাগরে মাছ শিকার করছেন।