সরকারি বই বিক্রির মামলা তদন্তের দায়িত্বে ডিবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাইবান্ধাঃ জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় মাধ্যমিক স্তরের ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে নবম শ্রেণি পর্যন্ত বিনামূল্যে বিতরণের সরকারি পাঠ্যবই বিক্রির মামলা তদন্তের দায়িত্ব পেল গাইবান্ধা পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)।

বুধবার ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোখলেছুর রহমান বইয়ের গোডাউন পরিদর্শনসহ মামলার বাদী এবং একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলেন।

সোমবার রাতে সিরাজগঞ্জ জেলার বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু পশ্চিম থানা পুলিশের কাছ থেকে পিকআপ ভ্যানসহ জব্দ বই, চালক শ্যামল মিয়া ও হেলপার রাসেল মিয়াকে সুন্দরগঞ্জ থানায় নিয়ে আসে পুলিশ। মামলার পর মঙ্গলবার তিনজনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়। মঙ্গলবার রাতেই গাইবান্ধা পুলিশ সুপার মো. কামাল হেসেন মামলাটি তদন্তের জন্য ডিবি পুলিশকে দায়িত্ব দেন।

জানা গেছে, রোববার বই বিতরণের গোডাউন সুন্দরগঞ্জ ডি ডব্লিউ সরকারি ডিগ্রি কলেজের হলরুম থেকে ২০২৩ শিক্ষাবর্ষের সাড়ে এগারো হাজার বই একটি পিকআপ ভ্যানে করে ঢাকা নেওয়ার পথে সিরাজগঞ্জ জেলার বঙ্গবন্ধু যমুনা সেতু পশ্চিম থানা পুলিশ জব্দ করে। এ সময় চালক শ্যামল মিয়া ও হেলপার রাসেল মিয়াকে আটক করা হয়। বইগুলো তারা সুন্দরগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের অফিস সহায়ক মাজেদের কাছ থেকে সংগ্রহ করেন বলে জানান। বিষয়টি পুলিশকে জানালে রোববার রাতে মাজেদকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় আনা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মাজেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। রাতেই বইয়ের গোডাউন তল্লাশি করে দেখা গেছে ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণির ১১ হাজার ৫০০ নতুন বই গোডাউনে নেই।

গাইবান্ধা ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জানান, তদন্ত অব্যাহত রয়েছে। একাধিক ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

শিক্ষাবার্তা ডট কম/এএইচএম/০১/১৯/২৩