website page counter সরকারি অফিস ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ - শিক্ষাবার্তা ডট কম

শুক্রবার, ৩রা এপ্রিল, ২০২০ ইং, ২০শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | বসন্তকাল | ⏰ সকাল ১১:১৭

সরকারি অফিস ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ

নিউজ ডেস্ক।।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব এড়াতে আগামী ৪ এপ্রিল পর্যন্ত পুলিশ ও হাসপাতাল ছাড়া সরকারের সব অফিস-আদালত বন্ধ হওয়ার নিদের্শনা আসতে পারে।

সোমবার মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এই বিষয়ে ব্রিফিং করে বিস্তারিত ঘোষণা দেবেন বলে একটি সূত্রে জানা গেছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আব্দুল গাফফার  বলেন, কিছুক্ষণের মধ্যে এ বিষয়ে ব্রিফিং করে বিস্তারিত জানানো হবে।

সচিবালয় সূত্রে আরও জানা যায়, করোনাভাইরাস সংক্রমণ স্থানীয় পর্যায়ে ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা তৈরি হওয়ায় সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এটা ঠিক লকডাউন না। অর্থাৎ মানুষের কাজ থাকবে না। এ সময় বাসা থেকে না হওয়ার অনুরোধ জানানো হবে।

উল্লেখ্য  দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণরোধে আগামী ২৫ থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত দেশের সব সুপার মার্কেট ও দোকান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি।

রোববার বিকেলে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সংগঠনের মহাসচিব জহিরুল হক ভূইয়া এই তথ্য জানিয়েছেন। তবে ওষুধ, কাঁচাবাজার এবং নিত্যপণ্যের দোকান খোলা থাকবে।

কভিড-১৯ রোগ বৈশ্বিক মহামারীতে রূপ নেওয়ার পর দেশেও সংক্রমণ ঘটায় সারাদেশে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আদালতসহ বিভিন্ন অফিসে কাজও সীমিত করে আনা হয়েছে।

সংক্রমণ এড়াতে জনসমাগম ঘটানোর মতো অনুষ্ঠান বন্ধ করা হয়েছে। জনসমাগম ও পাবলিক পরিবহন এড়াতে বলা হয়েছে সবাইকে।

গত ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের উহানে প্রথম শনাক্ত হওয়া করোনাভাইরাস এখন বৈশ্বিক মহামারি। এতে সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে তিন লাখ মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন ১৪ হাজারেরও বেশি মানুষ। এছাড়া চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন প্রায় ৯৯ হাজার মানুষ।

বাংলাদেশে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে গত ৮ মার্চ। এরপর দিন দিন এ ভাইরাসে সংক্রমণের সংখ্যা বেড়েছে। সর্বশেষ হিসাবে দেশে এখন পর্যন্ত ৩৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন, মারা গেছেন তিনজন। সেলফ ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে আছেন প্রায় ১৮ হাজার মানুষ। তাদের অধিকাংশই বিদেশফেরত।

করোনার বিস্তাররোধে এরই মধ্যে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে সভা-সমাবেশ ও গণজমায়েতের ওপর। চারটি দেশ ও অঞ্চল ছাড়া সব দেশ থেকেই যাত্রী আসা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

মুলতবি করা হয়েছে জামিন ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াদি ছাড়া নিম্ন আদালতের বিচারিক কাজ।

এই বিভাগের আরও খবরঃ