শৈত্য প্রবাহের সাথে বৃষ্টির সম্ভাবনা

অনলাইন ডেস্ক।।

দেশের বিস্তীর্ণ অঞা্চলে বিরাজমান শৈত্য প্রবাহ অব্যাহত থাকবে বলেই আভাস মিলেছে, সেই সঙ্গে হালকা অথবা গুঁড়ি গুড়ি বৃষ্টি হতে পারে।শৈত্যপ্রবাহের মধ্যে মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে পশ্চিমের জেলা চুয়াডাঙ্গায়; সেখানে বৃহস্পতিবার থার্মোমিটারের পারদ নামে ৬ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রকিবুল হাসান জানান, হিমেল বাতাসের কারণে এক সপ্তাহ ধরে সেখানে তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে। এ সময়ে কখনও ঘন কুয়াশা দেখা গেছে, কোনো কেনো দিন প্রায় সারাদিনই সূর্যের দেখা মেলেনি। এর মধ্যে গত ৭, ৮ ও ৯ দেশের সর্বনিম্ন দিনের তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল চুয়াডাঙ্গায়। আর ১২ জানুয়ারি রেকর্ড হয়েছে মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

বৃহস্পতিবার টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, মাদারীপুর, গোপালগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, বরিশাল ও ভোলা জেলাসহ রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের উপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্য প্রবাহ বয়ে যাচ্ছিল। এদিন ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

বড় এলাকাজুড়ে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গেলে তাকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ ধরা হয়; ৬ থেকে ৮ ডিগ্রির মধ্যে থাকলে মাঝারি এবং ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বলা হয়।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাসে চলতি মাসে দুই থেকে তিনটি শৈত্য প্রবাহের আশঙ্কার কথা বলা হয়েছে, যার মধ্যে একটি মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ।গত ৩ থেকে ৭ জানুয়ারি এক দফা শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যায়। এরপর আরেকদফা শৈত্যপ্রবাহ চলছে।

আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক জানান, বিরাজমান শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে শুক্রবারও। তবে রাত থেকে শনিবারের মধ্যে কোথাও কোথাও হালকা অথবা গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি হতে পারে। এ সময় তাপমাত্রা সামান্য বেড়ে কোথাও কোথাও শৈত্যপ্রবাহ কমতে পারে।“সোমবার থেকে রাতের তাপমাত্রা কমতে পারে। এ সময় অনেক এলাকায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাবে আবারও।”

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের নদী অববাহিকা ও এর কাছাকাছি এলাকায় মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা এবং দেশের অন্যত্র হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে এবং এটি কোথাও কোথাও দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।