শেখ হেলাল উদ্দীন সরকারি কলেজে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন

‌মোঃ মোজা‌হিদুর রহমান।।
বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট উপজেলার শেখ হেলাল উদ্দীন সরকারি কলেজে আজ ১০ জানুয়ারি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৫১তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত হয়েছে। ১৯৭২ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু পাকিস্তানের বন্দিদশা থেকে মুক্তি পেয়ে রক্তস্নাত বাংলার মাটিতে পা রাখেন। তাঁকে বরণ করতে লক্ষ জনতা ভীড় জমায় ঢাকা বিমানবন্দরে। এরপর প্রতিবছর কৃতজ্ঞ বাঙালি নানা আয়োজনে দিবসটি পালন করে।

দিবসটি উপলক্ষে সকাল ৯:০০ ঘটিকায় জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। এরপর কলেজে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষ্কর্যে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। সকাল ১০:০০ ঘটিকায় কলেজের স্বপন দাশ অডিটোরিয়াম ভবনে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন কলেজের অধ্যক্ষ বটু গোপাল দাস।

আলোচনা সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলওয়াত করেন ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রভাষক মোঃ আমিনুল হক এবং গীতা থেকে পাঠ করেন কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী অনামিকা অধিকারী। আহবায়ক মোঃ সাইদুর রহমানের উপস্থাপনায় সূচনা বক্তব্য প্রদান করেন ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের প্রভাষক শেখ শামীম ইসলাম। আলোচনা সভায় সভাপতি মহোদয় ছাড়াও বক্তব্য প্রদান করেন সহকারী অধ্যাপক মো. হোসাইন সায়েদীন, মৃত্যুঞ্জয় কুমার দাশ, সিরাজুল ইসলাম, প্রভাষক চন্দ্র শেখর অধিকারীসহ প্রমুখ।

সভায় সকল বক্তারা স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরেন। সভাপতি মহোদয় তাঁর বক্তব্যের শুরুতে বঙ্গবন্ধুকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন। তিনি বলেন, ‘ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস মানে ‘অন্ধকার থেকে আলো হাতে বঙ্গবন্ধুর দেশে ফেরা। বঙ্গবন্ধুর স্বাধীন বাংলাদেশে ফেরার মধ্য দিয়ে মানুষ যেন পূর্ণাঙ্গ বিজয়ের দেখা পেয়েছিল সেদিন।’ বক্তব্য শেষে সভাপতি মহোদয় সবাইকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী হওয়ার আহবান জানান।

সবশেষে সভাপতি মহোদয় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জ্ঞাপন এবং উপস্থিত সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে আলোচনা সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।