শীতলক্ষ্যায় মিলল বুয়েটছাত্রের লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

নিখোঁজের তিন দিন পর শীতলক্ষ্যা নদী থেকে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী ফারদিন নুর পরশের লাশ উদ্ধার করেছে নারায়ণগঞ্জ নৌ-থানা পুলিশ।

সোমবার (০৭ নভেম্বর) বিকেলে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। পরশের বাবা নুরউদ্দিন রানা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ফারদিন বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ১৮তম ব্যাচের ছাত্র।

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, তিনি গত ৪ নভেম্বর বিকেল ৩টার দিকে বুয়েটের আবাসিক হলের উদ্দেশে বাসা থেকে বের হন। ৫ নভেম্বর সকাল ১০টায় সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্টে পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা ছিল। কিন্তু ডিপার্টমেন্টের পরীক্ষায়ও অংশ নেননি তিনি। তার গ্রামের বাড়ি নারায়নগঞ্জের ফতুল্লার নয়ামাটি গ্রামে। বর্তমানে তারা রাজধানীর ডেমরার শান্তিবাগের ১৩/১২ নম্বর বাসায় থাকতেন।

ফারদিনের চাচা নাবিল চৌধুরী জানান, নিখোঁজের দিন রাত ১০টার দিকে তাকে সর্বশেষ রাজধানীর রামপুরা এলাকায় দেখা গেছে। এরপর ১১টা থেকে তার ব্যক্তিগত ফোন বন্ধ পাওয়া যাচ্ছিলো। পরে নিখোঁজের পরেরদিন ৫ সেপ্টেম্বর রামপুরা থানায় ফারদিনের নিখোঁজ সংক্রান্ত একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়।

তিনি বলেন, আজ সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ-থানা পুলিশ ফোন করে জানায় সেখানে একটি লাশ পাওয়া গেছে। পরে আমরা গিয়ে তার লাশ শনাক্ত করি।

নারায়ণগঞ্জ সদর নৌ-থানার পরিদর্শক মনিরুজ্জামান বলেন, লাশটি অজ্ঞাত পরিচয় হিসেবে উদ্ধার করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা-পুলিশ আমাদের কাছে লাশ হস্তান্তর করে। পরে পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেলে নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। এই ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।