শিখবো গণিত করবো জয়

প্রকাশিত: ১০:২০ পূর্বাহ্ণ, রবি, ৮ নভেম্বর ২০

নিউজ ডেস্ক।।

শিক্ষার্থী বন্ধুরা, শুভেচ্ছা নিও। আজ তোমাদের পরীক্ষার প্রস্তুতির সুবিধার্থে গণিত থেকে আলোচনা করা হচ্ছে। প্রথমে নিজেরা চেষ্টা করবে।

উৎপাদক বা গুণনীয়ক : কোনো নির্দিষ্ট সংখ্যাকে যতগুলো সংখ্যা দিয়ে নিঃশেষে ভাগ করা যায় তার প্রত্যেকটিকে মূল সংখ্যার উৎপাদক বা গুণনীয়ক বলে। যেমন- ১২ কে ১, ২, ৩, ৪, ৬ ও ১২ দ্বারা নিঃশেষে ভাগ করা যায়। তাই ১, ২, ৩, ৪, ৬ ও ১২ কে ১২ এর উৎপাদক বা গুণনীয়ক বলে।

প্রকৃত উৎপাদক   :সাধারণত প্রতিটি সংখ্যা ১ এবং ওই সংখ্যা দ্বারা বিভাজ্য। কিন্তু ওই সংখ্যাটি ১ এবং ওই সংখ্যা ছাড়া অন্য যে কোনো সংখ্যা দ্বারা বিভাজ্য হলে ওই সংখ্যাগুলোকে প্রকৃত উৎপাদক বলে।

সহমৌলিক সংখ্যা   :দুই বা ততোধিক সংখ্যার সাধারণ গুণনীয়ক (উৎপাদক) শুধু ১ হলে সংখ্যাগুলো পরস্পর সহমৌলিক। সহমৌলিক সংখ্যাগুলোর গ. সা. গু হবে ১। যেমন- ৮ ও ৯।

যৌগিক বা কৃত্রিম সংখ্যা  :যেসব সংখ্যার ১ ও ওই সংখ্যা ছাড়াও অন্য গুণনীয়ক থাকে তাদের কৃত্রিম বা যৌগিক সংখ্যা বলে। অন্যভাবে বলা যায়, যে সংখ্যার কমপক্ষে একটি প্রকৃত উৎপাদক থাকে তাকে কৃত্রিম সংখ্যা বলে। যেমন- ৮ = ২ক্ম২ক্ম২

বিভাজ্যতা   :একটি সংখ্যাকে অন্য একটি সংখ্যা দিয়ে ভাগ করলে তা যদি নিঃশেষে বিভাজ্য হয় তবে প্রথম সংখ্যাটি দ্বিতীয় সংখ্যা দিয়ে বিভাজ্য হবে। একেই বলা হয় সংখ্যার বিভাজ্যতা।

২ দ্বারা বিভাজ্যতার সহজ সূত্র : কোনো সংখ্যার একক স্থানীয় অঙ্কটি ০ অথবা জোড় সংখ্যা (২, ৪, ৬, ৮…) হলে প্রদত্ত সংখ্যাটি ২ দ্বারা নিঃশেষে বিভাজ্য হবে। যেমন- ১২০৮৭২৯২৪।

৩ দ্বারা বিভাজ্যতার সহজ সূত্র : কোনো সংখ্যার অঙ্কগুলোর যোগফল ৩ দ্বারা বিভাজ্য হলে প্রদত্ত সংখ্যাটি ৩ দ্বারা নিঃশেষে বিভাজ্য হবে। যেমন- ২৭৯ সংখ্যার অঙ্কগুলোর যোগফল (২+৭+৯=১৮) ১৮, যা ৩ দ্বারা বিভাজ্য।

শিক্ষাবার্তা/এস জেড

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.