রামগঞ্জে আরো ২২ বিদ্যালয়ে নতুন ভবন হবে

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপুমনি বলেছেন, লক্ষ্মীপুর-১ আসনের অন্তর্গত রামগঞ্জ উপজেলায় ৫৮টি এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। এরমধ্যে ৩১টি স্কুল, ৪টি কলেজ এবং ২৩টি মাদ্রাসা।

তিনি বলেন, ২০০৯ সাল থেকে শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নের লক্ষ্যে সারাদেশে ১ হাজার ৬২৪টি বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল-কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ এর আলোকে এমপিও প্রত্যাশী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহের নিকট থেকে অললাইনে আবেদনপত্র গ্রহণ করা হয়েছে। অর্থমন্ত্রণালয় হতে বরাদ্দ প্রাপ্তিসাপেক্ষে এমপিওভুক্তির কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে লক্ষ্মীপুর-১ রামগঞ্জ আসনের সরকারি দলের সংসদ সদস্য ড. আনোয়ার হোসেন খানের এক লিখিত প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।

আনোয়ার হোসেন খানের অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন বলেন, ফেব্রুয়ারি- ২০১৪ থেকে মে ২০১৯ পর্যন্ত লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলায় ২৬টি বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণসহ ৬৫টি কক্ষ নির্মাণ করা হয়েছে। আরো ১৯টি বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

এছাড়া আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরে সরকারি ১২টি, নতুন জাতীয়করণকৃত-১০টিসহ ২২টি বিদ্যালয়ে নতুন ভবন নির্মাণের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ বলেন, প্রতিবন্ধী বিদ্যালয়

স্থাপনের পরিকল্পনা সরকারের রয়েছে। রামগঞ্জ উপজেলায় সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীন জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে পরিচালিত কোনো বিশেষায়িত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বর্তমানে নেই। এ সম্পর্কিত সমন্বিত বিশেষ শিক্ষা নীতিমালা ২০০৯ এর আওতায় বর্তমানে বিভিন্ন জেলায় ৬২টি বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বিদ্যালয় ও ১১টি স্পেশাল স্কুল ফর চিলড্রেন উইথ অটিজমের

কার্যক্রম চালু আছে।
তিনি জানান, লক্ষ্মীপুর জেলায় একটি বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী বিদ্যালয় চালু আছে। কর্মরত সেখানে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা সরকার দিচ্ছে। প্রতিবন্ধী সম্পর্কিত সমন্বিত বিশেষ শিক্ষা নীতিমালা ২০০৯ যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে নীতিমালাটি সংশোধনের কার্যক্রম শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বর্ণিত সমন্বিত বিশেষ শিক্ষা নীতিমালার ২০০৯ কে বিভাজন করে অটিজম বৈশিষ্টসম্পন্ন শিক্ষার্থীদের জন্য একটি পৃথক নীতিমালার আওতায় পর্যায়ক্রমে দেশের প্রতিটি উপজেলায় একটি করে প্রতিবন্ধী বিদ্যালয় স্থাপন করার পরিকল্পনা সরকারের আছে।