যশোর শিক্ষাবোর্ডের ৩৩ কর্মকর্তাকে তলব করেছে দুদক

নিউজ ডেস্ক।।

সাত কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় যশোর শিক্ষাবোর্ডের ৩৩ কর্মকর্তাকে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) দুদকের চিঠির ভিত্তিতে যশোর শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্টদের বিষয়টি জানিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দুদকের যশোর জেলা সমন্বিত কার্যালয়ে ডাকা হয়েছে তাদের। আগামী ১৫ জানুয়ারি থেকে এই ৩৩ জনের জবানবন্দি গ্রহণ করবে দুদক। যাদের ডাকা হয়েছে তাদের মধ্যে অধিকাংশ অডিট ও হিসাব শাখার বর্তমান ও তৎকালীন কর্মকর্তা-কর্মচারী।

সূত্রে আরো জানা যায়, ২০২১ সালের বিভিন্ন সময় শিক্ষাবোর্ডের ৩৮টি চেক জালিয়াতির মাধ্যমে আত্মসাৎ করা হয়েছে সাত কোটি টাকা। এ ঘটনা জানাজানি হলে বোর্ড কর্তৃপক্ষ যশোর দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) লিখিত অভিযোগ করে। বোর্ডের তৎকালীন চেয়ারম্যান প্রফেসর মোল্লা আমীর হোসেনের পরামর্শে তৎকালীন সচিব এ এম এইচ আলী আর রেজা এই অভিযোগ করেন। এরপর তদন্তে নেমে দুদক দুর্নীতির প্রমাণ পাওয়ায় মামলা করে। দুদক যশোরের তৎকালীন সহকারী পরিচালক মাহফুজ ইকবাল মামলাটি করেছিলেন। মামলায় পাঁচজনকে আসামি করা হয়। আসামিদের মধ্যে বোর্ডের তৎকালীন চেয়ারম্যান মোল্লা আমীর হোসেন, সচিব এএমএইচ আলী আর রেজা, হিসাব সহকারী আব্দুস সালাম অন্যতম।

উল্লেখ্য, মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ হন যশোর দুদকের তৎকালীন উপ-পরিচালক নাজমুচ্ছায়াদাত। গত বছরের ডিসেম্বরে তিনি বদলি হওয়ার পর নতুন উপ-পরিচালক হিসেবে মো: আল আমিন যোগদান করেন। বর্তমানে তিনি মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। তিনি ঘটনার শিকড়ের সন্ধানে দফায় দফায় সরেজমিন তদন্ত করছেন। এরই ধারাবাহিকতায় বর্তমানে বোর্ডের ওই সময়ের হিসাব ও অডিট শাখায় কর্মরতদের ৩৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের উদ্যোগ নিয়েছে দুদক। তিন দফায় তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।