মুখ ঢেকে মানববন্ধন করলেন রিভা-রাজিয়ার অনুসারীরা

ইডেন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে অভিযোগের প্রতিবাদ এবং বহিষ্কৃত ছাত্রনেত্রীদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিতে সাধারণ শিক্ষার্থীদের ব্যানারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানার অনুসারীসহ শতাধিক শিক্ষার্থীকে মুখ ঢেকে মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ নিতে দেখা গেছে।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ইডেন কলেজের ২ নম্বর গেট থেকে ১ নম্বর গেট এলাকায় এ মানববন্ধন হয়।

কদিন ধরেই অভ্যন্তরীণ কোন্দলে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের রাজনীতিতে উত্তাপ ছড়াচ্ছে। দুটি গ্রুপ হয়ে পরস্পরের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ গণমাধ্যমের কাছে তুলে ধরছে দুপক্ষ। ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সামিয়া রহমান বৈশাখী গণমাধ্যমে ইডেন কলেজের শিক্ষার্থীদের ছাত্রলীগ সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানার ‘অনৈতিক’ কার্যক্রমে বাধ্য করানোর অভিযোগ তোলেন।

সরেজমিনে মানববন্ধনে দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা ইডেন কলেজ ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত ১৬ নেত্রীর প্রশাসনিক শাস্তির দাবিতে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড প্রদর্শন করেন। একই সঙ্গে গণমাধ্যমের কাছে তাদের নাম প্রকাশের বিষয়টি গোপন রেখে বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেত্রীদের বিরুদ্ধে তাদের অভিযোগ ও এসব অভিযোগের কারণে তাদের শাস্তি দেওয়ার দাবি জানান।

মানববন্ধনে খোদেজা খাতুন হলের এক শিক্ষার্থী জাগো নিউজের সঙ্গে কথা বলেন। হলে তার রুম নম্বর ৩০৯ বলে জানান। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খোদেজা খাতুন হলের ৩০৯ নম্বর রুমে থাকেন সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানা। এ শিক্ষার্থী রাজিয়ার অনুসারী বলে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের বিশেষ সূত্রে জানা গেছে। এ শিক্ষার্থী জাগো নিউজকে বলেন, গণমাধ্যমে ইডেন কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেত্রী বৈশাখী যে বক্তব্য দিয়েছেন তাতে আমাদের কলেজের সুনাম ক্ষুণ্ন হয়েছে। এ বক্তব্যের কারণে তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।

ঐশ্বর্য মালাকার নামের এক শিক্ষার্থীকে মানববন্ধনের নেতৃত্ব দিতে দেখা যায়। তিনি রাজিয়া হলের ২০৪ নম্বর রুমে থাকেন। এ রুমটি সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভার নিয়ন্ত্রণাধীন বলে জানা যায়। ঐশ্বর্য রিভার অনুসারী হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিচ্ছেন।

তিনি জাগো নিউজকে বলেন, বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেত্রী বৈশাখীসহ অন্যরা ইডেন কলেজের শিক্ষার্থীদের নিয়ে যে বক্তব্য দিয়েছেন তাতে আমরা সামাজিক ও পারিবারিকভাবে এবং বিভিন্ন মাধ্যমে সমালোচনা এবং হেনস্তার শিকার হচ্ছি। তাদের জন্য এখন আমাদের লুকিয়ে চলতে হচ্ছে। ইডেন কলেজ প্রশাসনের কাছে আমাদের দাবি- তাদের প্রশাসনিকভাবে বহিষ্কার করা হোক।

মানববন্ধন শেষে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানা ক্যাম্পাসে প্রবেশ করেন।

দুপক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন ও হামলার পরিপ্রেক্ষিতে ইডেন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত করে গত রোববার রাতে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দেয় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের ১৬ জন নেতাকর্মীকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের বিষয়টিও জানানো হয়।

ওইদিন দুপুরে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানার বিরুদ্ধে ছাত্রী নিবাসের সিট বাণিজ্য, চাঁদাবাজি, শিক্ষার্থী নির্যাতনসহ বেশ কয়েকটি অভিযোগ এনে দুজনকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করে কলেজ ছাত্রলীগের ২৫ নেত্রী।

এ অভিযোগের প্রতিক্রিয়ায় বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করতে গিয়ে হামলার শিকার হন তামান্না জেসমিন রিভা। পরে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়।