মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করুন

প্রকাশিত: ৫:৫২ পূর্বাহ্ণ, রবি, ২২ নভেম্বর ২০

প্রতিদিন গড়ে ১৫ হাজার পরীক্ষা করা হচ্ছে আর এর মধ্যে সংক্রমণের সংখ্যা গড়ে প্রায় দুই হাজার অর্থাত্ সংক্রমণের হার প্রায় ১৫ শতাংশ। পরীক্ষা কম হওয়ায় করোনা উপসর্গ নিয়েই অনেকে অন্যদের সঙ্গে মেলামেশা করছে আর ভাইরাসের সংক্রমণও বাড়ছে। এই সংক্রামক ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধের একমাত্র উপায় প্রতিষেধক। ভ্যাকসিন কবে পাওয়া যাবে, তা এখনো নিশ্চিত নয়।

সবার মাস্ক পরা নিশ্চিত করতে সচেতনামূলক পদক্ষেপের সঙ্গে প্রয়োজনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে আইন প্রয়োগ করতে হবে।

“মাস্ক যদি আমরা সবাই ব্যবহার করি, তাহলে অটোমেটিক আমাদের ইনফেকটেড হওয়ার সম্ভবনা কমে আসে। এজন্য মানুষকে আরও বেশি করে সচেতন করতে হবে, অনেকের মধ্যে একটু শিথিল ভাব দেখা যাচ্ছে।”

গার্মেন্টস ফ্যাক্টরিসহ সব শিল্প কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও মালিকরা বিষয়টি নিশ্চিত করবেন।

হকার, রিকশা ও ভ্যানচালকসহ সব পথচারীর মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। বিষয়টি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিশ্চিত করবেন।

হোটেল ও রেস্টুরেন্টে কর্মরত ব্যক্তি এবং জনসমাবেশ চলাকালীন আবশ্যিকভাবে মাস্ক পরিধান করবেন। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট মালিক সমিতি নিশ্চিত করবে।

সকল প্রকার সামাজিক অনুষ্ঠানে আগত ব্যক্তিদের মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে হবে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধান নিশ্চিত করবেন।

বাড়িতে করোনা উপসর্গসহ কোনো রোগী থাকলে পরিবারের সুস্থ সদস্যরা মাস্ক ব্যবহার করবেন।

এ পরিপত্র বাংলাদেশে বসবাসরত সকলের জন্য প্রযোজ্য বলে উল্লেখ করা হয়।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে বাংলাদেশে কোভিড-১৯ পরীক্ষার সংখ্যা কমে যাওয়ার পরেও আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে।

এই সময়ে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে।

মঙ্গলবার পর্যন্ত করোনায় দেশে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৭০৯ জন। আর মোট শনাক্ত হয়েছেন ২ লাখ ১০ হাজার ৫১০ জন।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা মহামারি করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া বন্ধ করার কার্যকর উপায় হিসেবে কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানা এবং মাস্ক পরিধান করার পরামর্শ দিয়েছেন।

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে গত জুলাই মাসের শেষ দিকে বাসার বাইরে সব জায়গায় সবার মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করে সরকার। অতি সংক্রামক এই ভাইরাস প্রতিদিনই মানুষের মৃত্যু ডেকে আনলেও নানা অজুহাতে এখনও অনেকে মাস্ক ব্যবহার করছেন না।

কাজেই করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে শতভাগ মানুষেরই মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। একইসঙ্গে জনসমাগমও নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.