বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলো (এনজিও) ভবিষ্যতে দেশের দারিদ্র্য বিমোচন, অসাম্প্রদায়িক সমাজ বিনির্মাণ এবং সুশাসন ও মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন গণমাধ্যম কর্মীরা। তারা বলেছেন, এই লক্ষ্যে এনজিও ও গণমাধ্যমগুলোকে একযোগে কাজ করতে হবে।

‘এনজিওদের উন্নয়ন অভিযাত্রায় গণমাধ্যমের সম্পৃক্ততা’ বিষয়ক এই গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলোর শীর্ষ সমন্বয়কারী প্রতিষ্ঠান অ্যাসোসিয়েশন অব ডেভলপমেন্ট এজেন্সিজ ইন বাংলাদেশ (এডাব)।

বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন এডাব চেয়ারপারসন আব্দুল মতিন। তিনি আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে বিশেষ করে দরিদ্রদের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, নারীর ক্ষমতায়ন, পুঁজির আদান-প্রদান, মানবসম্পদ উন্নয়ন ইত্যাদি বিষয়ে এনজিওগুলোর অবদান তুলে ধরেন।

গোলটেবিল বৈঠকে দেশের বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রিক মিডিয়ার প্রায় ৩৫ জন সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন। তারাও এনজিওগুলোর কার্যক্রমের প্রতি সমর্থন জানিয়ে এই কাজে সম্পৃক্ত হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন।