মাদরাসায় গ্রন্থাগারিক নিয়োগ: ৩০ দিনের মধ্যে আবেদন নিষ্পত্তির নির্দেশ

প্রকাশিত: ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ, মঙ্গল, ২১ সেপ্টেম্বর ২১

নিউজ ডেস্ক।।

দেশের সব বেসরকারি মাদরাসায় গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে চলমান নিয়োগ কার্যক্রম বিজ্ঞপ্তির আলোকে সম্পূর্ণ করার আবেদন আগামী ৩০ (ত্রিশ) দিনের মধ্যে নিষ্পত্তির নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। মাদরাসা অধিদফতরের মহাপরিচালককে এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

সারাদেশের বেসরকারি মাদরাসাসমূহের ২৯ জন গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে চাকরি প্রার্থীর রিটের শুনানি নিয়ে আদালত এ আদেশ দেন।

আদালতে রিটকারীদের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া এবং রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

আইনজীবী মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ গত বছরের ২৩ নভেম্বর বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাদরাসা জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ সংশোধনী প্রকাশ করে। উক্ত সংশোধনীতে গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদ সৃষ্টি করে। মাদরাসা কর্তৃপক্ষ জনবল নিয়োগের জন্য গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে নিয়োগের জন্য বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুসারে রিটকারীগণ গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে চাকরির আবেদন করেন।

গত ১৮ জুলাই কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ, শিক্ষা মন্ত্রণালয় স্মারক নং ৫৭.০০.০০০০.০০০.২২.০০১.২০.১৪২ এর মাধ্যমে এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করে এবং বেসরকারি (কারিগরি ও মাদ্রাসা) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পূর্বের ‘সহকারী গ্রন্থাগারিক, সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার, সহকারী গ্রন্থাগারিক/ক্যাটালগার’ পদটি ‘সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান)’ এবং পূর্বের ‘গ্রন্থাগারিক’ পদটি ‘গ্রন্থাগার প্রভাষক’ পদ হিসেবে নিয়োগ প্রদানের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

তিনি বলেন, ওই স্মারকের ২.০ নং শর্ত অনুসারে পূর্বের ‘সহকারী গ্রন্থাগারিক, সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার, সহকারী গ্রন্থাগারিক/ক্যাটালগার’ পদটি ‘সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান)’ এবং পূর্বের ‘গ্রন্থাগারিক’ পদটি ‘গ্রন্থাগার প্রভাষক’ নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রবেশ পর্যায়ে (এন্ট্রি লেভেল) অন্যান্য শিক্ষকের ন্যায় বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে পরীক্ষা গ্রহণ ও উত্তীর্ণদের সদন প্রদানসহ যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ পূর্বক স্ব-স্ব অধিদফতরের চাহিদার অনুকূলে নিয়োগ সুপারিশ করা হবে মর্মে উল্লেখ করা হয়।

কিন্তু চলতি বছরের ১৮ জুলাই পূর্বে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির আলোকে গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য কোনো নির্দেশনা প্রদান করা হয়নি। গত ২৫ আগস্ট রিটকারীরা গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদের চলমান নিয়োগ কার্যক্রম সম্পূর্ণ করার জন্য মাদরাসা অধিদফতরের মহাপরিচালক বরাবর আবেদন করেন। কিন্তু অধিদফতর কোসো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। এ কারণে মো. শফিকুল ইসলাম, মো. দৌলত খান, আজহারুল ইসলাম, মোশারফ হোসেন, মোস্তফা কামাল, আতা উল্ল্যাহ্, আল-আমিন এবং রাশিদুল ইসলামসহ মোট ২৯ জন হাইকোর্টে রিট করেন।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.