ভিটামিন “সি” হিমোগ্লোবিনের ঘাটতি পুরনে কার্যকর

প্রকাশিত: ২:১৯ অপরাহ্ণ, বুধ, ৬ জানুয়ারি ২১

শিক্ষাবার্তা ডেস্ক :

একধরণের গ্যাস্ট্রিক অ্যাসিড আছে যেটা পেটে আয়রণের হজমকে সহজতর করে। আয়রণের ঘাটতিজনিত রক্তস্বল্পতাজনিত রোগীদের ক্ষেত্রে মুখে আয়রণ দিয়ে চিকিৎসা করা হয়। কিন্তু, চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা আয়রণের সাথে অ্যাসকরবিক এসিড (ভিটামিন সি) গ্রহণের পরামর্শ দেয়। আয়রণ হজমের জন্য ভিটামিন সি কার্যকর।

চীনের একটি ক্লিনিক্যাল পরীক্ষাগারে ৪৪০ জন রোগীর উপর এই গবেষণা করা হয়। এসব রোগীদের ফেরাস সুসিনেট ও ভিটামিন সি একসঙ্গে করে খাইয়ে দেওয়া হয়। সেখানকার প্রায় সব অংশগ্রহনকারী রোগীই তরুণ নারী। যারা আয়রণের ঘাটতিজনিত রোগ মেনোরিহেগিয়ায় ভুগছেন।

প্রথমে এসব রোগীদের গড় হিমোগ্লোবিন ছিলো ৮.৮ গ্রাম/ডিএল। চিকিৎসা শুরু হওয়ার পরে ৮ সপ্তাহের মধ্যে তাদের হিমোগ্লোবিন প্রায় ৪ মিলিগ্রাম/ডিএল বৃদ্ধি পায়।

ভিটামিন সি আমাদের শরীরের নানাবিধ উপকারে আসে। সর্দি বা ঠাণ্ডা থেকে নিউমোনিয়া বা ফুসফুসের অন্যান্য সংক্রমণের সম্ভাবনা কমাতে সাহায্য করে। দুর্ভাবনা বা মানসিক চাপের জন্য অনেকের দেহের প্রতিরোধ ক্ষমতা হ্রাস পায়। আবার মানসিক চাপ বা স্ট্রেস প্রভাবে দেহের ভিটামিন সি-র পরিমাণ কমে যায়। যেমন কমে যায় মদ্যপান, ধূমপান, ইত্যাদির জন্য। তাই পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন সি দেহে থাকা সুস্থ দেহের লক্ষণ।

আমেরিকান জার্নাল অফ ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশান-এ প্রকাশিত একটি নিবন্ধে বলা হয়েছে দেহে ভিটামিন সি-র মাত্রা বেশি থাকলে বয়সের সঙ্গে সঙ্গে চামড়া কুঁচকে যাওয়া বা শুকনো হয়ে যাবার সম্ভাবনা কম থাকে। রক্তে ভিটামিন সি-র পরিমান বেশি থাকলে স্ট্রোক হবার সম্ভাবনাও কিছুটা কমে বলে দেখা গেছে।

এছাড়া শরীরের নানান কাজে ভিটামিন সি-রঅবদান আছে। দেহের টিস্যু-র বৃদ্ধি বা সংরক্ষণে,ক্ষতের নিরাময়ে,দেহের নিত্য-প্রয়োজনীয় আয়রণ সংগ্রহে, দাঁত, হাড় এবং মজ্জা সংরক্ষণে ভিটামিন সি বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

সাধারণ ভাবে ভিটামিন সি আমরা পাই ফলমূল এবং সব্জি থেকে। দৈনিক এক কাপ কমলা লেবুর রসে ৯৭ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি থাকে। সেটা বর্তমানে অনুমোদিত দৈনিক প্রয়োজনের তুলনায় যথেষ্ট। এক কাপ টমেটো জুসে ৪৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি থাকে। এক কাপ সেদ্ধ করা ব্রকোলিতে ৭৪ মিলিগ্রাম।

তবে সাধারণ লোকের পক্ষে ৫০০ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি শুধু খাবার থেকে সংগ্রহ করা সম্ভব নয়। এরজন্য ভিটামিন সি-র ট্যাবলেট খাওয়াই যুক্তিযুক্ত। সাধারণ ভিটামিন সি ট্যাবলেট খেলে কেউ কেউ অম্লজনিত অসুবিধায় কষ্ট পান। সেক্ষেত্রে নন-অ্যাসিডিক বাফার্ড ট্যাবলেট খাওয়া উচিত। তবে অধিক মাত্রায় ভিটামিন সি খাবার আগে চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করে নেওয়া উচিত।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.