ভার্চুয়ালি উদযাপন করতে হবে নববর্ষ

প্রকাশিত: ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ, বৃহঃ, ৮ এপ্রিল ২১

অনলাইন ডেস্ক :

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণ পরিস্থিতির মধ্যে জনসমাগম এড়িয়ে এবার ভার্চুয়ালি নববর্ষ উদযাপন করতে হবে।

বুধবার (৭ এপ্রিল) এমন নির্দেশনার চিঠি সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

আগামী ১৪ এপ্রিল বাংলা ১৪২৮ সনের প্রথম দিন পহেলা বৈশাখ। গত কয়েক বছর ধরে বাংলা নববর্ষ বাংলাদেশে সার্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে। কিন্তু করোনার কারণে গত বছরও নববর্ষ উদযাপন করা যায়নি।

সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মনিরুল আলম সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘এ রকম অবস্থায় তো ফিজিক্যালি নববর্ষ আমরা পালন করতে পারব না। বাস্তব অবস্থা বিবেচনা করেই সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। করোনার এখন যে অবস্থা সেই অনুযায়ী নববর্ষ পালনের বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। জনসমাগম করা যাবে না, ভার্চুয়ালি যতটা করা যায়। সবার আগে আমাদের জনস্বার্থ দেখতে হবে।’

সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (সাংস্কৃতিক চুক্তি শাখা) আ স ম হাসান আল আমিন বলেন, ‘একটা নির্দেশনা গেছে যে, করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতিতে নববর্ষ উদযাপনে কোনোভাবেই জনসমাগম করা যাবে না। স্বল্প পরিসরে ভার্চুয়ালি বা অনলাইনে নববর্ষের অনুষ্ঠান করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘নির্দেশনাটি আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয়, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোতে এই নির্দেশনার চিঠিটি পাঠিয়েছি। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের নির্দেশনার ও আন্তঃমন্ত্রণালয় সভার সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে এই চিঠি দেয়া হয়েছে।’

নববর্ষ উদযাপনের অন্যতম অনুসঙ্গ মঙ্গল শোভাযাত্রা। গত বছরের মতো এবারও মঙ্গল শোভাযাত্রা হচ্ছে না বলে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে।

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ উদ্বেগজনক হারে বাড়তে থাকায় গত ৫ এপ্রিল থেকে আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউন ঘোষণা করে সরকার প্রজ্ঞাপন জারি করে। তবে আজ থেকে ঢাকাসহ সব সিটি করপোরেশন এলাকায় সকাল-সন্ধ্যা গণপরিবহন চালু করে দিয়েছে সরকার।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.