বিশ্ব ব্যাংক কিসের দাতা, লোন নিই-শোধ করি

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

পদ্মা সেতুর নামে স্যাংকশন হওয়া বিশ্ব ব্যাংকের সেই টাকা উদ্ধার করে বাংলাদেশ অন্য প্রজেক্টে ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (২২ জুন) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘যেই টাকাটা বাংলাদেশের নামে স্যাংকশন হবে সেই টাকাটা নষ্ট করার কোনো রাইট তাদের নাই। অর্থাৎ পদ্মা সেতু থেকে তারা টাকা বন্ধ করেছে, টাকা কিন্তু আমরা উদ্ধার করতে পেরেছি। এই টাকা অন্যান্য প্রজেক্টে আমরা ব্যবহার করতে পেরেছি। এটা কিন্তু করা যায়। এটা কিন্তু আমাদের অনেকে জানে না। আমি জানি না, কেন জানে না। ’

কোনো দেশের নামে বিশ্ব ব্যাংক কোনো টাকা বরাদ্দ করলে সেই টাকা সেই দেশকেই দিতে হয় জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশের নামে যে টাকা হবে সেটা টাকা তাকে দিতে হবে, সে বাধ্য। কাজেই একটা প্রজেক্ট বন্ধ হয়ে গেলে সেটা চলে যাবে সেটা কিন্তু হয় না। ’

বিশ্ব ব্যাংক কোনো দাতা সংস্থা নয় জানিয়ে সরকার প্রধান বলেন, ‘অনেকে বলে বিশ্বব্যাংক দাতা। বিশ্বব্যাংকের আমরা কিন্তু অংশীদার। তারা কিন্তু কোনো অনুদান দেয় না। আমরা লোন নেই। ’

তিনি বলেন, ‘আমাদের যারা অর্থনীতিবিদ, আমাদের যারা কাজ করে তারা এটা কেন মাথায় রাখে না যে এরা কোনো দাতা না। আমরা তাদের কাছে ভিক্ষা নেই না। ব্যাংকের একটা অংশীদার হিসেবে আমরা লোন নেই এবং সুদসহ সেই লোন পরিশোধ করি। … আমরা কিন্তু সেখান থেকে লোন নেই। ’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি ৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর ওই দাতা দাতা বলা বন্ধ করে দিয়েছি। কিসের দাতা, এরা উন্নয়ন সহযোগী। আমি লোন নেই সুদসহ পরিশোধ করি। সুদের হার কম। এটা ঠিক। কিন্তু সুদ দিয়ে তো আমরা টাকা পরিশোধ করছি। আমরা তো ভিক্ষা নিচ্ছি না। আমরা ঋণ নেই এবং শোধ করি। এই-টুকু সুবিধা স্বল্প সুদ। ’