বিশ্বকাপেও করোনার যেসব নির্দেশনা

প্রকাশিত: ৮:৩৯ অপরাহ্ণ, সোম, ১১ অক্টোবর ২১

অনলাইন ডেস্ক।।

আগামী ১৭ অক্টোবর থেকে শুরু হতে চলেছে ১৬ দলের আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে ভারতের বদলে ওমান ও আরব আমিরাতে হবে এবারের বিশ্বকাপ। ভারত থেকে বিশ্বকাপ সরিয়ে নেওয়া হলেও কোভিডের ঝুঁকি তো থাকছেই। 

আসর চলাকালে যদি দলের কেউ করোনায় আক্রান্ত হয় তাহলে কী পদক্ষেপ নিতে পারে তা পরিষ্কার করে জানিয়েছেন আইসিসির বায়ো সেফটি বিভাগের প্রধান অ্যালেক্স মার্শাল।

আইসিসি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে কেউ করোনা পজিটিভ হলে তাকে ১০ দিনের আইসোলেশনে থাকতে হবে। যদি ওই ব্যক্তি উপসর্গহীন হয় তবুও এই নিয়ম কার্যকর থাকবে।

এছাড়া কোভিড শনাক্ত হওয়া ব্যক্তির সংস্পর্শে মাস্ক ছাড়া কেউ যদি অন্তত ১৫ মিনিট থাকে তাহলে তাকে ছয় দিন আইসোলেশনে থাকতে হবে। আর যদি মাস্ক পরে কাছাকাছি থাকে তাহলে তাকে ২৪ ঘণ্টা আইসোলেশনে থাকতে হবে। তাকে অবশ্যই কোভিড টেস্ট করে দলের সুরক্ষা বলয়ে প্রবেশ করতে হবে।

আসর চলাকালে কেউ চোট পেলে বা অসুস্থ হলে স্ক্যান বা চিকিৎসার জন্য জৈব সুরক্ষা বলয় ছেড়ে হাসপাতালে যেতে হয়, সেক্ষেত্রে অবশ্যই সুনির্দিষ্ট জৈব সুরক্ষা বলয়কৃত হাসপাতালে যেতে হবে।

আসর চলাকালে দলের কেউ জৈব সুরক্ষা বলয় অমান্য করে বাইরে চলে আসলে তার ক্ষেত্রে কী হবে, সেটি এখনও নির্দিষ্ট করেনি আইসিসি। তবে আইসিসি আশাবাদী, দলের কেউ সুরক্ষা বলয়ের নিরাপত্তা নষ্ট করবেন না।

এদিকে, দর্শকদের ওমান ও আবুধাবির মাঠে বসে খেলা দেখতে হলে দুই ডোজ ভ্যাকসিন নেয়া থাকতে হবে বলে জানিয়ে আইসিসি। পাশাপাশি মাঠে অবশ্যই মাস্ক পরে থাকতে হবে। খেলোয়াড়দের সঙ্গে কোনো প্রকার সংযোগ করতে পারবেন না দর্শকরা।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.