বাগেরহাটে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত

মোঃ মোজা‌হিদুর রহমান।।

১৯ জানুয়ারি ২০২৩ তারিখ রোজ বৃহস্পতিবার বাগেরহাট সদর উপজেলার যদুনাথ স্কুল অ্যান্ড কলেজে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন সেকেন্ডারি এডুকেশন ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের (এসইডিপি) অন্তর্ভুক্ত স্ট্রেংদেনিং রিডিং হ্যাবিট অ্যান্ড রিডিং স্কিলস অ্যামাং সেকেন্ডারি স্টুডেন্টস স্কিম-এর আওতায় পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এস, এম, মোর্শেদ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাগেরহাট সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার রুবাইয়া তাছনিম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এস, এম, হিশামুল হক, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার, বাগেরহাট সদর উপজেলা। এবং আরও উপস্থিত ছিলেন খান রেজাউল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, বাগেরহাট সদর উপজেলা।
এছাড়াও বাগেরহাট সদর উপজেলার মাধ্যমিক পর্যায়ের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান এবং সংগঠকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন । স্বাগত বক্তব্য রাখেন এস, এম, হিশামুল হক, উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার, বাগেরহাট সদর, বাগেরহাট। উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালার মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপনের মাধ্যমে ‘পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি’র কর্মপরিকল্পনা, বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে তুলে ধরেন আব্দুল্লাহ মুহাম্মদ কুরাইশী, টিম ম্যানেজার, বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র। তিনি বলেন, উদ্বুদ্ধকরণ কর্মশালার অন্যতম উদ্দেশ্য মাধ্যমিক পর্যায়ের ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে তাদের মন এবং বয়স উপযোগী বই পড়ায় আগ্রহী করে তোলা। পাঠাভ্যাসের প্রসার ও সুযোগ বৃদ্ধি করা। কর্মসূচি পরিচালনার জন্য প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের নির্বাচিত শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ, শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন, বইপড়া শেষে মূল্যায়নের ভিত্তিতে পুরস্কার প্রদান এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লাইব্রেরি টেকসই ও কার্যকর করার লক্ষ্যে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। বইপড়ার গুরুত্ব সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে আজকের এই কর্মশালা।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে খান রেজাউল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান, বাগেরহাট সদর উপজেলা। তিনি বলেন, শিক্ষার ‍পরিবর্তন হচ্ছে। বিশ্বের উন্নত দেশগুলো আরও ৩০ বছর আগেই শিক্ষা ব্যবস্থার পরিবর্তন করেছেন। আর আমরা এতপরে এসে পরিবর্তন শুরু করলেও নানা বিচ্চ্যুতি রয়েছে। আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ স্যার এই বিচ্চ্যুতি রোধে বই পড়া কর্মসূচি শুরু করেছে। সরকার এই কাজে যোগ দিয়েছেন, আমাদের শিক্ষকদেরও এই আন্দোলনে অংশ নিতে হবে।
কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রুবাইয়া তাছনিম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, বাগেরহাট সদর। তিনি বলেন, শিক্ষকতা একটি মহৎ এবং পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ পেশা। প্রত্যেক মহৎ মানুষই গড়ে উঠেছে কোন না কোন শিক্ষককের হাতে। অন্য কোন পেশার মানুয়ের সাথে শিক্ষকরা নিজেদের তুলনা করা মানে নিজেদের অবমূল্যায়ন করা। বন্ধু হিসাবে বই কখনো বেইমানি করে না। শিক্ষার্থীদের খারাপ কাজ থেকে দূরে রাখতে হবে। এর জন্য পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচি একটি সময় উপযোগী পদ্ধতি। অবসর সময় কাটানোর জন্য বই পড়ার মতো উত্তম কোন কাজ নেই। উপস্থিত শিক্ষক ও সংগঠকদের কর্মসূচীর ব্যাপারে উদ্ভূদ্ধ করেন, প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন, কর্মসূচী পরিচালনা করার ব্যাপারে সর্বাত্বক সহযোগীতা করার প্রতি প্রতিষ্ঠান প্রধান ও সংগঠকগনদের আহ্বান করেন এবং অত্র উপজেলায় পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচীর শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন।
কর্মশালায় সভাপতি হিসেবে বক্তব্য রাখেন এস, এম, মোর্শেদ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, বাগেরহাট সদর, বাগেরহাট। তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে আমরা বড়রাই বই পড়া থেকে বিচ্চ্যুত হয়েছি। আমাদের বই পড়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে যাতে বাচ্চাদের বই পড়ার অভ্যাস গড়ে উঠে। শিক্ষকদের নিজেদেরও বই পড়তে হবে এবং শিক্ষার্থীদের পড়তে অভ্যস্থ করে তুলতে হবে পাঠাভ্যাস উন্নয়ন কর্মসূচির বই পড়ার মাধ্যমে বাগেরহাট সদর উপজেলাকে স্মার্ট উপজেলা হিসাবে গড়ে তুলতে হবে।
তিনি ভবিষ্যতে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের সকল কাজে সার্বিক সহযোগিতা করবেন এ মর্মে প্রতিশ্রুতি দেন এবং কর্মশালার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।