প্রাথমিকের বৃত্তি পরীক্ষায় যে ধরনের প্রশ্ন থাকবে

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ফের শুরু হচ্ছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের বৃত্তি পরীক্ষা। আগামী ২৯ ডিসেম্বর এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের এক অফিস আদেশ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (সাধারণ প্রশাসন) মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের সই করা আদেশে জানানো হয়, উপজেলা পর্যায়ে বেলা ১১টায় উপজেলা এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ২৬ ডিসেম্বর বিদ্যালয়ে প্রবেশপত্র প্রেরণ করা হবে আর শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করা হবে ২৭ ডিসেম্বর।

মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন, ২৯ ডিসেম্বর বৃত্তি পরীক্ষার কারণে আগামী ১৯ ডিসেম্বর প্রাথমিকের বার্ষিক পরীক্ষা শেষে ২১ ডিসেম্বরের মধ্যে পঞ্চম শ্রেণির ফল প্রকাশ করতে হবে।’

পরীক্ষা চার বিষয়ে

অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিকের বৃত্তি পরীক্ষায় এবার চারটি বিষয়ে মোট নম্বর বরাদ্দ থাকবে ১০০। বাংলা, ইংরেজি, গণিত এবং বিজ্ঞান প্রতিটি বিষয়ে ২৫ নম্বরের করে প্রশ্ন থাকবে। বহুনির্বাচনী এবং লিখিত দুধরনের প্রশ্নই থাকবে। পরীক্ষার সময় নির্ধারণ করা হয়েছে দুই ঘণ্টা। ৪০ শতাংশ প্রশ্ন থাকবে লিখিত। আর ৬০ শতাংশ প্রশ্ন হবে এমসিকিউ পদ্ধতির। প্রতিটি বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণির বাছাই করা ১০ শতাংশ শিক্ষার্থী এ পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবে।

সবশেষ ২০০৮ সালে প্রাথমিকের বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরের বছর পঞ্চম শ্রেণিতে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) পরীক্ষা চালু হলে বাদ হয়ে যায় প্রাথমিকে বৃত্তি পরীক্ষা। তবে গত ২৮ নভেম্বর আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় আবার এ পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। এতোদিন পিইসি পরীক্ষার ফলের ভিত্তিতেই বৃত্তি দেওয়া হতো। করোনা সংক্রমণের কারণে গত দুবছর পিইসি পরীক্ষা হয়নি। ফলে দেওয়া হয়নি শিক্ষার্থীদের বৃত্তি।