পাস করা লেখাপড়া শেখা বাদ দিতে হবে

প্রকাশিত: ১১:০০ পূর্বাহ্ণ, বুধ, ১৪ জুলাই ২১

এই যে বর্তমানে ১৫-২০ লক্ষ গ্রাজুয়েট বেকার আছে এদের ভিতর ৯০% গ্রাজুয়েট হলো পাস করা মানে যাদের সার্টিফিকেট অনুযায়ি যোগ্যতা শতকরা ০.০১%!

আমি নিজেও ভাবি আমি ও তো ২/৩বছর পর গ্রাজুয়েট হবো তখন আমার যোগ্যতা কি থাকবে? পাস করা ছাড়া! আমি যদি তখন দোষ দেই ঘুষের বিনিময়ে চাকরি হয়, যোগ্যতা অনুযায়ি চাকরি নাই, তখন কি হবে?অথচ আমাদের যে যোগ্যতা নেই, সেটা আমরা বলবোনা। বরং সহজ ভাবে বলে দিবো ঘুষ ছাড়া, মামা খালু ছাড়া চাকরি হয় না! কি সাংঘাতিক!!

এদেশে শিক্ষার মান কমেনি বরং অযোগ্যদের উচ্চতর ডিগ্রীতে চান্স পাওয়া সহজ হয়ে গিয়েছে,যার কারণে আজকের এই অবস্থা! এই যে, HSC পাস করার পর একটা বিরাট অযোগ্য অংশ উচ্চশিক্ষা গ্রহনের সুযোগ পাচ্ছে!! অনার্সে পড়া এখন আলু, পটলের মত সহজলোভ্য হয়ে গেছে!

আমি মনে করি,এত বিশাল সংখ্যক শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষায় সুযোগ দেওয়া ঠিক না বরং উপজেলা, জেলা পর্যায়ের কলেজ সহ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় গুলোতে আসন সংখ্যা কমিয়ে বাজেট অনুযায়ী একজন শিক্ষার্থীকে সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা দেওয়া যায়, তেমন ভাবে আসন সংখ্যা রাখতে হবে।

একজন শিক্ষার্থীর গড় রেজাল্ট না দেখে তাহার শাখা অনুযায়ী মূল সাবজেক্ট গুলোর রেজাল্ট এর উপর পর্যালোচনা করে উচ্চমাধ্যমিক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার যোগ্যতা নির্ধারণ এবং সে অনুযায়ি লিখিত পরিক্ষা নিয়ে ভর্তি কার্যক্রম শুরু করলে যোগ্য মেধাবীরাই চান্স পাবে বলে আমি মনে করি।

দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যে বিশাল সংখ্যক পাস করা গ্রাজুয়েট বের হয়,তারা কখনোই চাইবে না সে গ্রাজুয়েট পাস করে SSC পাসের যোগ্যতার সমমান চাকরি পান কিংবা বেতন পান অথচ তার পাস করা যোগ্যতা ছারা কিছুই নেই!

এভাবেই আস্তে আস্তে বেকার সমস্যার তৈরী হয় সস্তা গ্রাজুয়েট তৈরীর জন্য। যদি তারা এই উচ্চশিক্ষার সুযোগ না পেতো তারা ঠিকই তাদের যোগ্যতা অনুযায়ি কোন না কোন কাজে লেগে পড়তো। কারিগরি ট্রেনিং নিয়ে উদ্যোক্তা হতো, চাকরি করতো অর্থনৈতিক উন্নতি হতো এত হতাশায় পড়তে হতোনা। বেকার সমস্যার সমাধান হতো।

B.A & M.A পাস করে তুমি যানোনা একটা সিভি লিখতে ?তুমি জানোনা ১০ জনের সামনে দুই চারটা স্পস্ট কথা বলতে তাহলে কি হবে?দোষ দিবা সরকারের?অথচ দোষ তোমার নিজের কারণ প্রতিযোগিতা মূলক বাজারে Pro Max Most ট্যালেন্ট হতে হতে হবে, নিজের সম্পর্কে বাংলাতে কিছু বলতে না পারা পাস করা গ্রাজুয়েট হলে কখনোই চাকরি পাবে না।

আমার মাঝে মাঝে মনে হয় লেখাপড়া বাদ দিয়ে দিতে, কারণ আমি পাস করা গ্রাজুয়েট হতে চাই না। এই দেশে বিভিন্ন সেক্টর আছে ক্যারিয়ার গড়ার কিন্তুু আমরা আমাদের পরিবার নিজেদের ইগোতে লাগবে বিধায় “লোকে কি বলবে”!!এই কারণে আগাতে পারেনা আমাদের সমাজে। বেকার থাকবে সন্তান তবুও ” লোকে কি বলবে” এই কারণে তাকে চাকরি করতে দেওয়া হবেনা কম বেতনের চাকরি বলে!

এই দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষিত বেকার তৈরীর কারখানা না।আমাদের পরিবার, সমাজ বেকার তৈরীর কারিগর। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে দোষ দেয়া আর্ট হয়ে গিয়েছে।

আমার ওমক আছে তমক আছে, এই তত্বে বিশ্বাসী গণ এবং পরিবার কখনো আগাতে পারেনা। আমার ব্যাক্তিগত খুব বিরক্ত লাগে এই বিষয়টা।

আপনার পরিবার খুব ভালো ধার্মিক পরিবার কিন্তুু আপনার চাকরির জন্য অনায়াসে ৫/১০ লক্ষ টাকা ঘুষ দিয়ে দিবে!!! তাহলে কি সেটা হালাল হলো? পুরোটায় তো হারাম!! জীবনটায় হারাম কিন্তু আমরা সেটাকে হালাল মনে করি। এই হলো আজকের সমাজের অবস্থা!!!! আসুন আমরা নিজেরা বদলে যায় সমাজ বদলে যাবে।

লেখকঃ আল-মাহমুদ জিম

অনার্স ১ ম বর্ষ (২০১৯-২০২০)
আলমডাঙ্গা সরকারী কলেজ,চুয়াডাঙ্গা।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.