পদোন্নতি পেলেন সেই মাসুদ

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

২০১৭ সালে মিরপুরে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) কার্যালয় পরিদর্শনকালে প্রতিষ্ঠানটির উপ-পরিচালক মাসুদুর রহমানকে উদ্দেশ্য করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, ‘ভালো হয়ে যাও মাসুদ, ভালো হয়ে যাও। তোমাকে আমি অনেক সময় দিয়েছি। তুমি ভালো হয়ে যাও। তুমি কি এখানে আবার পুরনো খেলা শুরু করেছো? তুমি কি কোনোদিনও ভালো হবে না? তখন মাসুদুর রহমান মন্ত্রীর সামনেই ছিলেন। পরবর্তীতে মন্ত্রীর সেই বাক্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়। আলোচনা- সমালোচনার জন্ম দেয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মাসুদ শব্দ ব্যবহার করে কোনো পোস্ট এলে কমেন্টে ‘মাসুদ ভালো হয়ে যাও’- এমন বাক্য লিখেছেন অনেকে। তবে এবার সেই মাসুদ পদোন্নতি পেয়েছেন। বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) উপ-পরিচালক মাসুদ আলমকে পদোন্নতি দিয়ে বিআরটিএ’র খুলনা বিভাগীয় পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। ২১শে জুন তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে এ দায়িত্ব গ্রহণও করেছেন।

বুধবার রাতে মানবজমিনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিআরটিএ’র চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মজুমদার।

বিজ্ঞাপন

তিনি বলেন, আমাদের অনেক পদ খালি রয়েছে। ২২১৫টি পদের বিপরীতে লোক পেয়েছি ৯৬ জন। এছাড়া বিভাগীয় পদ খালি থাকায় তার যোগ্যতা অনুযায়ী তাকে সেখানে পদায়ন করা হয়েছে। তিনি দক্ষতা ও যত্নের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করায় সরকার সন্তুষ্ট হয়েই তাকে পদোন্নতি দিয়েছে।
এর আগে, ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে বিআরটিএ’র মিরপুর কার্যালয় পরিদর্শনে গিয়েছিলেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তখন তার কাছে সেবাগ্রহীতারা লাইসেন্স সময়মতো না পাওয়াসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ করেন। সেবাগ্রহীতাদের অভিযোগ শুনে সেতুমন্ত্রী বলেন, আমি মাসুদকে দেখলে সব সময়ই বলি- ‘মাসুদ তুমি ভালো হয়ে যাও। কিন্তু সে এখনও পুরোপুরি ভালো হয়নি। মাসুদ দীর্ঘদিন বিআরটিএতে আছে। ব্যবহার ভালো, মধুর মতো। কিন্তু যা করার একটু ভেতরে ভেতরে করে।’

কার্যালয়ে গাড়ির ফিটনেস টেস্ট পরিদর্শনের সময় মন্ত্রী বলেন, ‘গাড়ি থাকে বাসায়, আর সেই গাড়ির ফিটনেস রিপোর্ট এমনি এমনি চলে যায়, তাই না? এসব কিন্তু চলবে না।’ এরপর মন্ত্রী কার্যালয়ের ভেহিকল ইন্সপেকশন সেন্টার ঘুরে দেখেন। সেখানে গিয়ে নতুন স্থাপনকৃত যন্ত্রগুলো দেখেন। এ সময় মাসুদুর রহমানকে উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী বলেন, ‘এই মেশিনগুলো ঠিক আছে তো? ঠিকমতো কাজ চলছে তো? যদি এবার একটা মেশিনও নষ্ট হয়, তবে তোমার চাকরি থাকবে না কিন্তু। অনেক কষ্টে এবার মেশিনগুলো স্থাপন করা হয়েছে। ডিজিটালভাবে সব ঠিক ধরা পড়ে যায়। তাই তোমাদের কিছু করার থাকে না, তাই মেশিনগুলো নষ্ট করো, তাই না?’

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে বিআরটিএ দেশের ৮টি বিভাগে বিভাগীয় পরিচালক পদ সৃষ্টি করেছে। পদ সৃজনের পর প্রথম পরিচালক হিসেবে খুলনা বিভাগে যোগদান করলেন ইঞ্জিনিয়ার মাসুদ আলম।