নতুন ১ হাজার প্রাইমারী স্কুল নির্মাণের সুপারিশ

প্রকাশিত: ৯:৫৩ পূর্বাহ্ণ, বৃহঃ, ৭ জানুয়ারি ২১

নিজস্ব প্রতিনিধি।।

ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশুনা ও যাওয়াতের সুবিধার্থে দেশের যে সকল প্রত্যন্ত অঞ্চলে ২ কিলোমিটারের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই সেসব স্থানে বিদ্যালয় স্থাপণের সুপারিশ করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি। বুধবার (৬ ডিসেম্বর) জাতীয় সংসদে অনুষ্ঠিত কমিটির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান এর সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন, মেহের আফরোজ, আলী আজম নজরুল ইসলাম বাবু, ফেরদৌসী ইসলাম এবং কাজী মনিরুল ইসলাম বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। সেখানে দেশে ‘এক হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ প্রকল্প’ নির্মাণ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমরা বৈঠকে বলেছি দেশের বহু স্থানে প্রয়োজন থাকা সত্ত্বেও প্রাইমারী স্কুল নেই। যেমন, চাপাইনবাবগঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলার বাসুগ্রামে আশেপাশে সর্বনিম্ম সাড়ে ৬ কিলোমিটারের মাঝে কোন প্রাথমিক বিদ্যালয় না থাকায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পরবর্তী যে এক হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় নির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে তাতে অগ্রাধীকার ভিত্তিতে এসমস্ত এলাকায় স্কুল প্রতিষ্ঠার কথা বলেছি। এসব স্কুল সরাসরি সরকার নির্মান করবে এবং শিক্ষক নিয়োগ দেবে।

তিনি জানান, ২ কিলোমিটারের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয় না করার নির্দেশনা থাকলেও বিভিন্ন কারণে দেশের এমন অনেক স্থান রয়েছে যেখানে তা মানা হয়নি। অনেক স্থানে সরকারী স্কুলের পাশাপাশি বেসরকারী স্কুল গজিয়ে উঠে আমাদের শিক্ষার্থী নিয়ে যাচ্ছে। এটা বন্ধ করতে শিক্ষার মান বাড়ানো এবং মনিটরিং জোরদার করার সুপারিশ করেছি আমরা। তাছাড়া যে এক হাজার নতুন স্কুলের প্রকল্প মন্ত্রণালয় গ্রহণ করেছে বলে সচিব জানিয়েছেন, সেগুলো যেন সর্বনিম্ন ২ কিলোমিটারের মাঝে প্রাথমিক বিদ্যালয় নেই সেখানে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নির্মাণ করা হয় তার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছি।

বৈঠকে বাধ্যতামূলক প্রাথমিক শিক্ষা বাস্তবায়ন পরিবিক্ষণ ইউনিট এর কার্যক্রম বাস্তবায়ন অগ্রগতি, বিভিন্ন নির্মাণ প্রকল্পসমূহের বাস্তবায়ন অগ্রগতি জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমীর (নেপ) পরিচালিত প্রশিক্ষণ সম্পর্কিত আলোচনা করা হয়।

বৈঠকে পূর্ববর্তী বদলী নীতিমালা বাতিল/সংস্কার কেনো প্রয়োজন সে বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে কমিটির নিকট বিস্তারিত ব্যাখ্যা প্রদানের সুপারিশ করা হয়। ‘ঢাকা মহানগরী ও পূর্বাচলে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন ও অবকাঠামো উন্নয়নসহ দৃষ্টিনন্দন করণ’ প্রকল্পের মোট ৩৫৬টি স্কুলের মাঝে প্রাথমিকভাবে ১৬০টি স্কুলের দৃষ্টিনন্দনকরণের নকশা উপস্থাপন করা হয়। এছাড়া বৈঠকে মহাপরিচালকের অফিস দৃষ্টিনন্দনকরণের সুপারিশ করা হয়। বৈঠকে বই বিতরণ কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করা দুইজন শিক্ষকের মৃত্যুতে কমিটির পক্ষ থেকে শোক জ্ঞাপন করা হয় এবং উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম নিয়ে আগামী বৈঠকে আলোচনার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। বৈঠকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিভিন্ন দপ্তর সংস্থার প্রধানগণসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.