দেশে দেশে দ্রুত ছড়াচ্ছে ওমিক্রন

নিউজ ডেস্ক।।

করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন দেশে সেই সঙ্গে বাড়াচ্ছে উদ্বেগ। দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হওয়া নতুন ধরনটি এখন বেলজিয়াম, ইসরাইল, হংকং-এর পাশপাশি নতুন করে, ব্রিটেন, ইতালি, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া এবং সর্বশেষ নেদারল্যান্ডে শনাক্ত হয়েছে। সংক্রমণ নিয়ে মার্কিন শীর্ষ সংক্রামক বিশেষজ্ঞ ড, অ্যান্থনি ফাউচি বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রেও যদি কেউ নতুন ভ্যারিয়েন্টে শনাক্ত হয়, তাতে আমি খুব অবাক হবো না’। এটি অতিসংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট বলেও শঙ্কা জানিয়েছেন তিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকায় পাওয়া করোনাভাইরাসের যে নতুন ধরন ঘিরে বিশ্বজুড়ে প্রচণ্ড হইচই শুরু হয়েছে, সেই ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে সবশেষ নেদারল্যান্ডে ১৩ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে।

যুক্তরাজ্যে প্রথম দু’জনকে আক্রান্ত হিসাবে শনাক্ত করা হয়েছে। গত শনিবার দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ বলেছেন, ব্রিটেনে নতুন ওমিক্রন করোনা ভ্যারিয়েন্টের দু’টি সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে; সংক্রমণের এই ঘটনা দক্ষিণ আফ্রিকা ভ্রমণের সঙ্গে সম্পৃক্ত। আক্রান্তদের একজন চেলমসফোর্ডের এবং অন্যজন নটিংহামের। ওমিক্রনের সম্ভাব্য প্রভাব মোকাবিলায় ফেস মাস্ক বাধ্যতামূলক করেছে ইংল্যান্ড। আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে ইংল্যান্ডের দোকানপাট এবং গণপরিবহনে ফেস মাস্কের ব্যবহার বাধ্যতামূলক হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সাজিদ জাভিদ।

নতুন এই ধরন শনাক্ত হওয়ায় ইতোমধ্যে আফ্রিকার কয়েকটি দেশে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে যুক্তরাজ্য। রোববার স্থানীয় সময় ভোর ৪টা থেকে মালাবি, মোজাম্বিক, জাম্বিয়া এবং অ্যাঙ্গোলাকে ব্রিটেনের লাল তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এর ফলে ব্রিটিশ এবং আইরিশ নাগরিক যারা এসব দেশ ভ্রমণ করেছেন, তাদের ফেরার পর ১০ দিনের জন্য সরকার অনুমোদিত স্থাপনায় বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন পালন করতে হবে। এছাড়া যারা ব্রিটেন এবং আয়ারল্যান্ডের নাগরিক নন, তারা দেশটিতে প্রবেশের অনুমতি পাবেন না।

ব্রিটেনের ভ্রমণ লাল তালিকায় ইতোমধ্যে আফ্রিকার দেশ বতসোয়ানা, এসওয়াতিনি, লেসোথো, নামিবিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং জিম্বাবুয়ে স্থান পেয়েছে।

ওমিক্রন সবশেষ শনাক্ত হয়েছে ইতালি ও জার্মানিতে। এক ইতালির নাগরিক ব্যবসায় সংক্রান্তে আফ্রিকার দেশ মোজাম্বিকে ভ্রমণ শেষে ১১ নভেম্বর রোমে ফিরেন। তার বাড়ি নেপলসের কাছাকাছি। ওই ব্যক্তির পরিবারের ৫ সদস্যের হালকা উপসর্গ রয়েছে বলে জানায় ইতালীয় সংবাদমাধ্যম লাপ্রেস। তাদের সবারই করোনা টেস্ট হয়েছে। ওই ব্যক্তির দুই ডোজ টিকা নেওয়া ছিল।

জার্মানির ম্যাক্স ভন পেটেনকোফার ইনস্টিটিউট, মিউনিখভিত্তিক মাইক্রোবায়োলজি কেন্দ্র বলেছে, গত ২৪ নভেম্বর দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে এক ফ্লাইটে আসা দুই যাত্রীর মধ্যে ওমিক্রনের উপস্থিত পাওয়া গেছে। তাদের পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

এদিকে অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্যে দুই ব্যক্তি করোনাভাইরাসের ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে শনাক্ত হয়েছেন। সম্প্রতি তাদের দক্ষিণ আফ্রিকায় ভ্রমণের ইতিহাস রয়েছে। তারা আলাদাভাবে আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চল থেকে শনি ও রবিবার সিডনিতে অবতরণের পরই করোনা পরীক্ষা করানো হয়। নিউ সাউথ ওয়েলসের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানায়, জরুরীভিত্তিতে জিনোমিক পরীক্ষা করা হয়েছে এবং তাদের দেহে করোনার নতুন স্ট্রেইনের উপস্থিতি পাওয়া যায়।

এক বিবৃতিতে এনএসডব্লিউ জানিয়েছে, শনাক্ত দুজনই আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চল থেকে কাতার এয়ারওয়েজের একটি বিমানে চড়ে দোহা হয়ে সিডনিতে পৌঁছায়। তাদের আলাদাভাবে আইসোলেশনে রেখে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। তবে একই বিমান করে আফ্রিকা থেকে আরও ১২ জন ফিরলেও তারা করোনায় শনাক্ত হননি। সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে বিমানের ক্রুসহ ২৬০ জনকে আইসোলেটে থাকার পরামর্শ দিয়েছে নিউ সাউথ ওয়েলসের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ।

ওমিক্রনে কেউ আক্রান্ত হলে এর প্রতিক্রিয়া কেমন তা এখনও বিস্তারিত জানাননি বিশেষজ্ঞরা। তবে এ নিয়ে গবেষণা শুরু করেছে। করোনায় বিশ্বে এ পর্যন্ত ৫২ লাখের বেশি মানুষের প্রাণহানি এবং ২৬ কোটি ১৫ লাখেরও বেশি শনাক্ত হয়েছে। বিশ্বব্যাপী টিকা কার্যক্রম শুরু করায় মাঝখানে করোনার প্রকোপ কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে গত মাস থেকেই ইউরোপের বিভিন্ন দেশে নতুন করে সংক্রমণ বাড়ছে। এরমধ্যে অস্ট্রিয়া, যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ডসের পরিস্থিতি উদ্বেগজনক। এ অবস্থায় নতুন ভ্যারিয়েন্টের কারণে আরও ভীতি ছড়াচ্ছে জনমনে।

যুক্তরাজ্যে নতুন ভ্যারিন্টে শনাক্তের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, ‘বিদেশি যাত্রীরা যুক্তরাজ্যে প্রবেশের পরপরই তাদের পিসিআর টেস্ট করা হবে এবং তাদের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ না আসা পর্যন্ত আইসোলেশনে থাকতে হবে। দোকান, শপিং মল, গণপরিবহনে বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। আগামী তিন সপ্তাহ পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হবে।’ এছাড়া বুস্টার ডোজ নিতে প্রচারণা চালানোরও কথা জানান তিনি।

এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকায় ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ফলে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টকে আরো ভালোভাবে মূল্যায়নের জন্য সময় পাওয়া যাবে। এনবিসি নিউজের টুডে শো-তে এমন মন্তব্য করেছেন হোয়াইট হাউসের প্রধান চিকিৎসা উপদেষ্টা ড. অ্যান্থনি ফাউসি। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে এখনও পর্যন্ত এই ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়নি। কিন্তু ইতোমধ্যেই ইসরাইল, বেলজিয়াম এবং অন্যান্য জায়গায় ভ্রমণ সম্পর্কিত সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রেও যদি কেউ নতুন ভ্যারিয়েন্টে শনাক্ত হয়, তাতে আমি খুব অবাক হবো না’। এটি অতিসংক্রামক ভ্যারিয়েন্ট বলেও শঙ্কা জানিয়েছেন তিনি। ড. ফাউচির মতো অনেকেই এখন ওমিক্রন নিয়ে উদ্বেগে রয়েছেন। কারণ নতুন স্ট্রেইনটি দেশে দেশে শনাক্ত হচ্ছে।

করোনাভাইরাসের অধিক সংক্রমণ ক্ষমতাসম্পন্ন ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে দুনিয়াজুড়ে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়েছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় এরইমধ্যে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়েছে এমন দেশগুলোর সঙ্গে বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে বিভিন্ন দেশ। আফ্রিকার সাত দেশের ওপর ভ্রমণে বিধিনিষেধ আরোপের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। আজ সোমবার থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। সাত দেশ হলো দক্ষিণ আফ্রিকা, নামিবিয়া, জিম্বাবুয়ে, বতসোয়ানা, লেসেথো, এসওয়াতিনি ও মোজাম্বিক। এসব দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রমুখী বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছে বাইডেন প্রশাসন। এই দেশগুলো থেকে শুধু মার্কিন নাগরিকরাই ফিরতে পারবেন বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন। এক বিবৃতিতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জানিয়েছেন, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভিড-১৯ বিষয়ক কারিগরি কমিটির প্রধান মারিয়া ভন কারখোভ বলেন, ‘ওমিক্রনকে উদ্বেগের ভ্যারিয়েন্ট বলা হচ্ছে। কেননা, এর ভেতর দুশ্চিন্তা করার মতো কিছু বৈশিষ্ট্য দেখা গেছে। এতে অনেক মিউটেশন দেখা গেছে। কিছু মিউটেশন (জিনগত পরিবর্তন) সত্যিই উদ্বেগের।’

অসুস্থতার মাত্রা তীব্র নয়, বিস্তৃতি ঘটছে
করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের সংক্রমণে অসুস্থতার মাত্রা তীব্র নয়, বরং হালকা মাত্রার হয় বলে জানা গেছে। দক্ষিণ আফ্রিকার মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান এঞ্জেলিক কোয়েৎজ এ তথ্য জানিয়েছেন। করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের কথা জানান দক্ষিণ আফ্রিকার বিজ্ঞানীরা। শনিবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভ্যারিয়েন্টটির নাম দেয় ওমিক্রন। বহুবার মিউটেড বা রূপ পরিবর্তন করা এই ভ্যারিয়েন্টকে ‘উদ্বেগজনক’ বলেও আখ্যা দিয়েছে সংস্থা। এঞ্জেলিক কোয়েৎজ বলেছেন, ‘এটি মৃদু রোগের উপসর্গের সাথে পেশিতে ব্যথা এবং এক বা দুই দিনের জন্য ক্লান্তিবোধ সৃষ্টি করে। ভাইরাসটি সংক্রমিতের স্বাদ বা গন্ধের ক্ষতি করে না বলে এখনও পর্যন্ত আমরা জানতে পেরেছি। আক্রান্তদের হালকা কাশি হতে পারে। কোন বিশিষ্ট লক্ষণ নেই। আক্রান্তদের মধ্যে কয়েকজন বর্তমানে বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন।’ এই কর্মকর্তা জানান, ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে এমন রোগীদের চাপ হাসপাতালে নেই এবং টিকা নিয়েছেন এমন ব্যক্তিদের দেহে এই ভ্যারিয়েন্টটি শনাক্ত হয়নি। তবে টিকা নেননি এমন ব্যক্তিদের বেলায় পরিস্থিতি ভিন্ন হতে পারে। তিনি বলেন, ‘আমরা কেবল দুই সপ্তাহ পর এগুলো জানতে পেরেছি। হ্যা, এটি সংক্রামক, তবে চিকিৎসাবিদ হিসেবে আমরা এখনও জানি না, কেন এতোবার রূপ বদল করেছে, আমরা এখনও বিষয়টি অনুসন্ধান করছি। ৪০ বছর ও তারচেয়ে কম বয়সী কিছু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে। পুরো বিষয়টি আমরা দুই থেকে তিন সপ্তাহ পর জানতে পারব।’

শাস্তি দেয়া হচ্ছে দক্ষিণ আফ্রিকাকে
এখন পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার মাত্র ২৪% মানুষকে সম্পূর্ণরূপে টিকা দেওয়া হয়েছে। ওমিক্রন নামে কোভিড-১৯ এর উদ্বেগজনক নতুন ভ্যারিয়েন্টটি আবিষ্কার করার জন্য, দক্ষিণ আফ্রিকাকে সাধুবাদ দেয়ার পরিবর্তে তাদেরকে শাস্তি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন দেশটির কর্মকর্তারা। দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে এমন অভিযোগ করে। মূলত এই ভ্যারিয়েন্টের বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য প্রকাশের পরপরই বিভিন্ন দেশ দক্ষিণ আফ্রিকায় ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। তার ভিত্তিতে ওই বিবৃতি দেয় দক্ষিণ আফ্রিকা।

উল্টো পথে সউদী আরব
দক্ষিণ আফ্রিকায় প্রথম শনাক্ত করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট ঘিরে বিশ্বজুড়ে প্রচণ্ড হইচইয়ের মধ্যেই নতুন ভ্রমণ নির্দেশিকা সামনে এনেছে সউদী আরব। নতুন ওই নির্দেশনা অনুযায়ী, কোভিড-১৯ টিকার মাত্র একটি ডোজ নেওয়া থাকলেই ‘বিশ্বের সকল দেশ’ থেকে সউদী আরবে যাওয়া যাবে। গত শনিবার সউদী কর্তৃপক্ষ এই তথ্য জানায় বলে এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট ঘিরে আতঙ্কের কারণে আফ্রিকার সাতটি দেশের বিরুদ্ধে ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞা আরোপের একদিনের মাথায় নতুন এই নির্দেশনা সামনে আনলো সউদী আরব।

নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী, কোভিড-১৯ টিকার মাত্র একটি ডোজ নেওয়া থাকলেই কোনো ব্যক্তি আগামী ৪ ডিসেম্বর থেকে সউদী আরবে প্রবেশ করতে পারবেন। তবে প্রবেশের পর সবাইকেই তিন দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

উল্লেখ্য, করোনাভাইরাসের প্রকোপ কমতে শুরু করায় ভ্রমণ বিধিনিষেধ তুলে নিতে শুরু করেছে সউদী আরব। এরই অংশ হিসেবে গত বৃহস্পতিবার ভারত ও পাকিস্তানসহ ৬টি দেশের ওপর থেকে ভ্রমণ বিধিনিষেধ তুলে নেয় দেশটি। এতে করে ওই ছয়টি দেশ থেকে আসা যাত্রীদের তৃতীয় কোনো দেশে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন ছাড়াই সরাসরি দেশটিতে ভ্রমণ করার সুযোগ দেওয়া হয়। আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে নতুন এই নিয়ম কার্যকর হওয়ার কথা বলা হয়েছিল। তবে এরপরই ৪ ডিসেম্বর থেকে এক ডোজ টিকা নেওয়া সাপেক্ষে যেকোনো দেশ থেকে সউদীতে প্রবেশের সুযোগ দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হলো।

বিশ্বজুড়ে ব্যাপক তুলকালাম ফেলে দেওয়া ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট গত বুধবার প্রথমবারের মতো দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হয়। দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত করোনার এই নতুন ধরন তার স্পাইক প্রোটিনে অন্তত ৩০ বার বদল ঘটিয়েছে; যে কারণে এই ধরনটি অন্যান্য ভ্যারিয়েন্টের তুলনায় বিপজ্জনক এমনকি করোনা টিকাকেও ফাঁকি দিতে পারে বলে অনেকে আশঙ্কা করেছেন। সূত্র : আল জাজিরা, এনবিসি নিউজ, ব্লুমবার্গ, এএফপি, বিবিসি নিউজ।