তামিল নাড়ুর প্রেমকান্ত এবার হাইকোর্টে

 নিউজ ডেস্ক।।

প্রেমিকার দেখা না পেয়ে একবুক বেদনা নিয়ে বরগুনা ছেড়ে আসা দক্ষিণ ভারতের তামিলনাড়ুর যুবক প্রেমকান্ত এবার পরামর্শের জন্য আইনজীবীর দ্বারস্থ হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইশরাত হাসানের হাইকোর্ট চেম্বারে আসেন ভারতীয় এই যুবক।

পরে ইশরাত হাসান জানান, তিনি অন্য দেশের নাগরিক হলেও বাংলাদেশে তার আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার রয়েছে। এ কারণে প্রেমকান্ত আমাদের কাছে আইনি পরামর্শের জন্য এসেছিলেন।

এর আগে ৬ আগস্ট বিকেলে পুলিশের সহযোগিতায় বরগুনা ছাড়েন তিনি।

জানা যায়, ২০১৯ সালে তামিলনাড়ুর যুবক প্রেমকান্তের সঙ্গে বরগুনার তালতলীর এক তরুণীর ফেসবুকে পরিচয় হয়। প্রেমকান্তের ভাষায়, এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই প্রেমিকাকে একনজর দেখার জন্য তিনি তামিলনাড়ু থেকে বাংলাদেশে আসেন। ২৪ জুলাই বরিশালের একটি রেস্টুরেন্টে দুইজনের দেখা হয়। এরপর থেকে ওই তরুণী তার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়। এরপর থেকেই তিনি বরিশাল ও বরগুনার বিভিন্ন স্থানে ঘোরাফেরা করতে থাকেন।

বরিশাল মেট্রোপলিটনের এয়ারপোর্ট থানা পুলিশের হেফাজতেও থাকতে হয় তাকে। সেখান থেকে এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ নিরাপত্তা নিয়ে ভারতীয় দূতাবাসের সঙ্গে কথা বলে প্রেমকান্তকে ঢাকায় পাঠিয়ে দেয়। কিন্তু প্রেমকান্ত ঢাকায় না গিয়ে বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) দিনগত রাতে বরিশাল থেকে সড়ক পথে বরগুনা যান। শুক্রবার বিকেলে তিনি তালতলী উপজেলায় প্রেমিকার খোঁজে ঘুরতে থাকেন।

এদিকে প্রেমিকাকে খুঁজতে তার গ্রামের বাড়ি গিয়ে তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচার ও সামাজিকভাবে হেয়-প্রতিপন্ন করায় ওই দিন ৫ আগস্ট শুক্রবার রাতে তরুণীর বাবা তামিলনাড়ুর যুবক প্রেমকান্তর নামে তালতলী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের কথা জানতে পেরে শুক্রবার বরগুনায় রাতে থেকে শনিবার (৬ আগস্ট) বিকেলে বরগুনা পৌর বাস টার্মিনাল থেকে বরিশালের একটি যাত্রীবাহী বাসে পাঠিয়ে দিয়েছেন বরগুনা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।