ডেঙ্গুতে মৃত্যু ২ শ ছাড়ালো চলতি বছর

অতীতের যেকোনো বছরের তুলনায় এ বছর ডেঙ্গুতে সর্বোচ্চ মৃত্যু দেখলো বাংলাদেশ। এডিস মশাবাহিত এ রোগে আক্রান্ত হয়ে চলতি বছর এ পর্যন্ত মারা গেছেন ২০২ জন, যা দেশের ইতিহাসে এক বছরে সর্বোচ্চ। এর আগে ২০১৯ সালে ডেঙ্গুতে ১৭৯ জনের মৃত্যু হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আরও ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

এ নিয়ে চলতি বছর এ পর্যন্ত ডেঙ্গুতে ২০২ জনের মৃত্যু হয়েছে। একইসঙ্গে গত একদিনে নতুন করে ৮৫৯ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ১৮৯ জনে।আজ রবিবার সারাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের নিয়মিত ডেঙ্গু বিষয়ক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
এতে আরও বলা হয়, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে নতুন ভর্তি হওয়াদের মধ্যে ৪২৬ জন ঢাকার বাসিন্দা। ঢাকার বাইরে ৪৩৩ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। বর্তমানে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি আছেন এক হাজার ৮৮৫ জন। আর ঢাকার বাইরের হাসপাতালগুলোতে ভর্তি আছেন এক হাজার ৩০৪ জন।
চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে আজ পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৪৮ হাজার ৫২৯ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৪৫ হাজার ১৩৮ জন।স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, ২০০০ সালে দেশে প্রথম ডেঙ্গুর ভয়াবহ প্রকোপ দেখা যায়। ওই বছর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ৯৩ জনের মৃত্যু হয়। এরপর প্রতিবছর মৌসুমে ডেঙ্গুর সংক্রমণ দেখা গেলে মৃত্যু ও শনাক্ত কম ছিল।
২০১৮ সাল পর্যন্ত বছরে ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা ছিল ৫০-এর নিচে। ২০১৯ সালে ফের ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দেয়। এ বছর মারা যান ১৭৯ জন। ২০২০ সালে করোনা মহামারির বছরে ডেঙ্গুতে মারা যান সাতজন। ২০২১ সালে আবারও ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়ে। ওই বছর ১০৫ জনের মৃত্যু হয়।