জিততেই হবে আর্জেন্টিনাকে

 নিউজ ডেস্ক।।

৩২ বছর আগের কথা। বিশ্বকাপ ফুটবলের আয়োজক সেবার ইতালি। বি গ্রুপে আর্জেন্টিনার প্রতিপক্ষ ক্যামেরুন, রুমানিয়া এবং সোভিয়েত ইউনিয়ন। ১৯৯০ সালের ৮ জুন বিশ্বকাপ ইতিহাসের বড় অঘটনগুলোর একটা ঘটিয়ে দেয় ক্যামেরুন।

মিলানের সান সিরো স্টেডিয়ামে ওমান বিয়িকের গোলে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে দেয় তারা। সেই বিশ্বকাপে পরের দুই ম্যাচে চার পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে থেকে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করে ম্যারাডোনার আর্জেন্টিনা। এরপর ফাইনালও খেলে আলবেসিলেস্তরা। ২২ বছর পর আরও একবার অঘটনের শিকার আর্জেন্টিনা।

কাতার বিশ্বকাপে সৌদি আরবের কাছে ২-১ গোলে হেরে মিশন শুরু করেন মেসিরা। দ্বিতীয় ম্যাচে মেক্সিকোকে ২-০ গোলে হারিয়ে আশা বাঁচিয়ে রাখলেও শঙ্কা কাটেনি এখনো। এই শঙ্কা নিয়েই আজ নাইন সেভেন ফোর স্টেডিয়ামে পোল্যান্ডের মুখোমুখি হচ্ছে আর্জেন্টিনা। ১৯৯০ সালে দিয়েগো ম্যারাডোনারা ফাইনাল খেলেছেন বাজে সূচনার পরও।
লিওনেল মেসিরা কী পারবেন ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি করতে!
সি গ্রুপে দুই ম্যাচে চার পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে অবস্থান পোল্যান্ডের। সমান ম্যাচে তিন পয়েন্ট আর্জেন্টিনার। সৌদি আরবেরও আছে তিন পয়েন্ট। মেক্সিকো এক পয়েন্ট নিয়ে সবার নিচে। তবে মেক্সিকোর সুবিধা হলো, তাদের প্রতিপক্ষ সৌদি আরব।

যারা ঘটনাক্রমে আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে দিলেও পোল্যান্ডের বিপক্ষেই নিজেদের সত্যিকারের রূপ মেলে দিয়েছে। তবে মেক্সিকো-সৌদি আরব ম্যাচের ফল যাই হোক, আর্জেন্টিনার বিপদ কমছে না। পোল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের বিকল্প নেই মেসিদের। বিশেষ করে মেক্সিকো একটু বড় ব্যবধানে জিতে গেলে আর্জেন্টিনা ড্র করলেও বিদায় নিতে পারে।
গ্রুপ পর্বের কঠিন এই সমীকরণটা মিলিয়ে নিতেই চেষ্টায় আছেন আর্জেন্টাইন কোচ লিওনেল স্কালোনি। তিনি অনুশীলনে প্রথম একাদশ নিয়ে বেশ কাজ করছেন। তবে আর্জেন্টিনা দলের ভিতরের খবর জানালেন প্রবীণ এক আর্জেন্টাইন সাংবাদিক। তিনি বললেন, লওটারো মার্টিনেজ কিছুটা সমস্যায় ভুগছেন। তাকে প্রথম একাদশে রাখা নিয়ে কিছুটা দ্বিধায় আছেন কোচ। মিডফিল্ডে আগের ম্যাচের গোলদাতা ফার্নান্দেজকে প্রথম একাদশে রাখবেন কি না তা নিয়েও ভাবছেন স্কালোনি। দল নিয়ে গতকাল সংবাদ সম্মেলনে সোজাসাপ্টা কিছু বললেন না লিওনেল স্কালোনি। তবে দল যাই হোক, আক্রমণভাগে ডি মারিয়া, লিওনেল মেসি থাকছেন। আর্জেন্টিনা নিজেদের খেলার ধারাতেও তেমন কোনো পরিবর্তন আনছে না। স্কালোনি বললেন, ‘আমরা জানি, ম্যাচটা কঠিন হবে। তবে আমরা নিজেদের খেলাটাই খেলে যাব। ’

পোল্যান্ড খুব সহজ দল নয় আর্জেন্টিনার জন্য। এই দলের বিপক্ষে এর আগে ১১ ম্যাচ খেলে ৬টিতে জিতলেও ৩টিতে হেরেছে আর্জেন্টিনা। ২০১১ সালে সর্বশেষ লড়াইয়ে পোলিশরা ২-১ গোলে হারায় আলবেসিলেস্তদের। বিশ্বকাপে দুই দল দুবার মুখোমুখি হয়েছে এর আগে। ১৯৭৪ সালে গ্রুপপর্বে ২-৩ গোলে আর্জেন্টিনা হেরে যায়। তবে পরের বিশ্বকাপেই দ্বিতীয় রাউন্ডে পোল্যান্ডকে ২-০ গোলে হারায় আলবেসিলেস্তরা।

আজ লিওনেল মেসিদের বড় বাধা হয়ে উঠতে পারেন বার্সেলোনা তারকা রবার্ট লেবানডস্কি। এরই মধ্যে তিনি বিশ্বকাপে আলো ছড়াতে শুরু করেছেন। সৌদি আরবের বিপক্ষে ম্যাচে নিজে একটা গোল করেছেন। সতীর্থদের দিয়ে আরও একটা গোল করিয়েছেন। দারুণ ফর্মে থাকা লেবানডস্কিকে নিয়ে বেশ আত্মবিশ্বাসী পোলিশ কোচ মিকনিবিজ। তিনি গতকাল সংবাদ সম্মেলনে বলে গেলেন, ‘লেবানডস্কি দারুণ ছন্দে আছে। তার এই ফর্ম আমাদের দলের জন্য সুখবর। তবে আমরা কেবল একজন ফুটবলারের উপর নির্ভর করেই খেলতে নামব না। দলের সবাই সমান গুরুত্বপূর্ণ। ’ আর্জেন্টিনা বনাম পোল্যান্ড। লিওনেল মেসি বনাম রবার্ট লেবানডস্কি। লড়াইটা বেশ জমবে আজ। এ লড়াই হতে পারে মেসির শেষ বিশ্বকাপ ম্যাচ। আবার এই ম্যাচেই লিওনেল মেসির জন্য খুলে যেতে পারে বিশ্বকাপের সিংহ দ্বার।