জার্মান দলে অবসরের হিড়িক

অনলাইন ডেস্ক।।

টানা দুইবার বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিল চারবারের চ্যাম্পিয়ন জার্মানি। কোস্টারিকার বিপক্ষে ৪-২ গোলে জিতলেও বিশ্বকাপ থেকে প্রথম রাউন্ডেই বিকল হয়ে পড়ল জার্মান যন্ত্র। দলের তারকা ফুটবলার থমাস মুলার হয়তো ভাবছেন অবসরের কথা। ম্যাচ শেষে তেমনটাই ইঙ্গিত দিলেন তিনি। সে সাথে আছেন আরও ক’জন ফুটবলার।

নিজেদের গ্রুপে তৃতীয় স্থানে থেকেই বিশ্বকাপ শেষ করল জার্মানি। প্রথম ম্যাচে জাপানের কাছে হেরে কাতার বিশ্বকাপ শুরু করে তারা। এরপর স্পেনের সঙ্গে ড্র করে তারা। শেষ ম্যাচে কোস্টারিকাকে বড় ব্যবধানে হারালেও ভাগ্য সঙ্গে ছিল না মুলারদের। জাপান হারিয়ে দেয় স্পেনকে। আর তাতেই বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যায় জার্মানি। গোল পার্থক্যে স্পেনকে টপকাতে পারেনি তারা। ম্যাচের পরেই মুলার বলেন, এটাই যদি শেষ ম্যাচ হয়, তাহলে বলব আমি খুশি। একসঙ্গে খুব ভালো সময় কাটালাম আমরা। প্রতিটা ম্যাচে আমি নিজের হৃদয় দিয়ে খেলেছি। ভালবেসে খেলেছি।

গতবারও গ্রুপ পর্ব থেকেই বিদায় নিয়েছিল জার্মানি। কাতারে তাই তাদের নিয়ে তৈরি হয়েছিল অনেক প্রত্যাশা। মনে করা হয়েছিল গতবারের প্রতিশোধ নেবে জার্মানরা। কিন্তু সেটা তারা পারেনি। মুলার বলেন, এই ফল আমাদের জন্য খুবই তিক্ততা রেখে গেল। মনে হচ্ছে আমাদের কোনও শক্তি নেই।

কোস্টারিকার বিপক্ষে প্রথম থেকেই দাপট দেখানো শুরু করে জার্মানি। আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলছিল তারা। ১০ মিনিটের মাথায় হেডে গোল করে জার্মানিকে এগিয়ে দেন সার্জ ন্যাব্রি। গোল করার পরেও ব্যবধান বাড়াতে মরিয়া ছিলেন মুলাররা। কোস্টারিকার অর্ধেই খেলা হচ্ছিল পুরোটা। রক্ষণেই ব্যস্ত ছিল কোস্টারিকার পুরো দল। কিন্তু প্রথমার্ধে আর গোল করতে পারেনি জার্মানি।

দ্বিতীয়ার্ধে অনেক বেশি আক্রমণাত্মক খেলা শুরু করে কোস্টারিকা। জার্মানির গোলের দিকে এগোতে থাকে তারা। ফলও মেলে। ৫৮ মিনিটের মাথায় তাজেদার গোলে সমতা ফেরায় কোস্টারিকা। গোল খেয়ে আক্রমণের ঝাঁঝ আরও বাড়ায় জার্মানি। কারণ গোল করা ছাড়া কোনও উপায় ছিল না তাদের। কিন্তু খেলার গতির বিপরীতে ৭০ মিনিটের মাথায় ন্যয়ারের আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যায় কোস্টারিকা।

খেলা সেখানেই শেষ হয়ে গেলে, জার্মানির পাশাপাশি স্পেনও ছিটকে যেত বিশ্বকাপ থেকে। কিন্তু সেটা আর হলো কই। ৭৩ মিনিটে সমতা ফেরালেন কাই হাভের্ৎজ। ৮৫ মিনিটের মাথায় আবারও গোল করলেন তিনি। ৮৯ মিনিটে দলের চতুর্থ গোল করলেন নিকলাস ফুলকুর্গ। শেষ পর্যন্ত ৪-২ ব্যবধানে ম্যাচ জিতল জার্মানি।

তবুও বিশ্বকাপে কোনও দিন এত লজ্জার মধ্যে পড়েনি জার্মানি। বিশ্বকাপের অন্যতম সফল দল তারা। চার বার বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হয়েছে। শুধু তাই নয়, রানার্স-আপও হয়েছে চার বার। তৃতীয় স্থানও পেয়েছে চার বার। অর্থাৎ সব মিলিয়ে আট বার বিশ্বকাপের ফাইনালে উঠেছে তারা। আর কোনও দেশের এই নজির নেই। সেই জার্মানিকেই কিনা পর পর দু’বার বিদায় নিতে হচ্ছে বিশ্বকাপের গ্রুপ থেকেই।