ছাপানো কাগজ বেশি সাদা হলে চোখের জন্য ক্ষতিকর: শিক্ষামন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক।।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু বলেছেন, ছাপানো কাগজ অনেক বেশি সাদা হলে তা চোখের জন্য ক্ষতিকর।

বুধবার (৪ জানুয়ারি) দুপুরে চাঁদপুর সদর উপজেলায় আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকরা চলতি শিক্ষাবর্ষের পাঠ্যপুস্তক নিউজপ্রিন্ট কাগজে ছাপা হওয়ার অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের ছাপানো বইয়ের কাগজের মান খারাপ নয়, রং কিছুটা ভিন্ন হলেও তা নিউজ প্রিন্ট নয়।’

ছাপানো কাগজ অনেক বেশি সাদা হলে তা চোখের জন্য ক্ষতিকর উল্লেখ করে দীপু মনি বলেন, ‘উন্নত দেশে বই ছাপানোর সময় সাদা কাগজে কিছুটা আইভরি রং করে ছাপে, যেন চোখের ক্ষতি না হয়। আর আমাদের দেশে সবাই মনে করে বই যত বেশি সাদা হবে তত বেশি ভালো। আমাদের বইয়ের কাগজের উজ্জ্বলতা কিছুটা কম হলেও তা নিউজপ্রিন্ট নয়।’

না জেনে, না বুঝে এক শ্রেণির মানুষ গেল গেল রব তুলছেন দাবি করে মন্ত্রী বলেন, ‘অতিমারি ও বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দার মধ্যেও আমরা বছরের প্রথম দিন বই উৎসব করতে পেরেছি সেটি একটি বিশাল ব্যাপার। এই অর্জনকে পাশ কাটানোর জন্যই নানা রকম কথা বলা হচ্ছে।’

শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, ‘এবার দেশে সেকেন্ডারি পালভ ছাড়া কোনো পালভ ছিল না। বিদেশ থেকেও কাগজ আনার সুযোগ ছিল না। আমাদের হাতে যে কাগজ ছিল, তা দিয়েই বই ছাপাতে হয়েছে। আগে এক বই একাধিক বার ব্যবহার করা হতো। কিন্তু এখন এক বই এক বছরই পড়ছে শিক্ষার্থীরা। তাই এই বই নিয়ে এমন বড় কোনো অসুবিধা হবে না। আমাদের প্রতিটি বাচ্চা বই পেয়েছে। হয়তো সব বই পায়নি। তবে যেসব বই এখনো বিতরণ করা হয়নি তা কয়েক দিনের মধ্যেই শিক্ষার্থীদের মাঝে পৌঁছে দেওয়া হবে।’

পরে মন্ত্রী চাঁদপুর স্টেডিয়ামে জাতীয় পতাকা ও বেলুন উড়ানোর মধ্য দিয়ে জেলা ক্রীড়া সংস্থা আয়োজিত শেখ কামাল দ্বিতীয় বাংলাদেশ যুব গেমসের উদ্বোধন করেন।

এতে ৮টি উপজেলা দলের বালক-বালিকা দল ৬টি খেলায় অংশগ্রহণ করেন।

এ সময় জেলা প্রশাসক কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফার সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন পৌর মেয়র জিল্লুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ফরিদঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম রোমান, চাঁপুর প্রেসক্লাব সভাপতি আহসান উল্লাহসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা।

এ সময় মন্ত্রী ২০ জন জেলেকে বিকল্প কর্মসংস্থান হিসেবে একটি করে ছাগলের বাচ্চা ও কম্বল, ২৩ জন প্রতিবন্ধীকে হুইল চেয়ার ও ৩০০ জেলে, রিকশাচালক ও বেধেদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন।