চিকিৎসাব্যবস্থা বিকেন্দ্রীকরণ হচ্ছে, গরীব মানুষ কতটা সুবিধা পাবে?

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

দেশের সব নাগরিককে হেলথ কার্ড দেওয়ার পরিকল্পনা চলছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে এমন পরিকল্পনা প্ল্যানিং কমিশনে পাঠানো হয়েছে। শিগগিরই হয়তো সেটি একনেক বৈঠকে উঠবে। গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে

বাংলাদেশ সেক্রেটারিয়েট রিপোর্টার্স ফোরামের (বিএসআরএফ) সংলাপে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, চিকিৎসাব্যবস্থা বিকেন্দ্রীকরণ হচ্ছে। গ্রামের মানুষকে যেন চিকিৎসার জন্য ঢাকায় আসতে না হয়, সে অনুসারে পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

জাহিদ মালেক বলেন, স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান একেবারে ওয়ার্ড পর্যায়ে পৌঁছে গেছে। কমিউনিটি ক্লিনিক আগে তিন কক্ষের ছিল। সেটা চার কক্ষের করা হয়েছে। এমনকি আগের নির্ধারিত ৩২টি ওষুধের পাশাপাশি শিশুদের জন্য ইনসুলিন রাখা হচ্ছে। উপজেলা হাসপাতালগুলো ৫০ থেকে ১০০ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, জাতীয় ক্যানসার হাসপাতালের শয্যা সংখ্যা দেড় শ বাড়িয়ে ৩শ করা হয়েছে। সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালকে এক হাজার শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে। রাজধানী ঢাকায় পাঁচ হাজার শয্যার হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। করোনা মহামারীর মধ্যেও আমরা ১৫ হাজার চিকিৎসক ও ২০ হাজার নার্স নিয়োগ দিয়েছি।