চাকরিপ্রত্যাশী শিখা ৪ মাস পানির ট্যাংকে

অনলাইন ডেস্কঃ

শিক্ষা অধিদপ্তরেরর কাছে ৪ মাস ধরে অবস্থান করছেন চাকরিপ্রত্যাশী শিখা পাল। ঘরবাড়ি ছেড়ে ভারতের লখনৌর নিশাতগঞ্জ এলাকায় অবস্থিত পানির ট্যাংকে বাস করছেন তিনি। এটা তার এক ধরনের প্রতিবাদ।

শিখার দাবি সম্প্রতি ৬৯,০০০ হাজার শিক্ষক পদে নিয়োগের শূন্য থাকা ২২,০০০ হাজার আসনের একটিতে তাকে নেওয়া হোক।

শিখা বলেন, ডিসেম্বরের এই তীব্র শীতের রাতে তিনি পানির ট্যাংকে থাকতে বাধ্য হচ্ছেন।

তিনি বলেন, আমি শুধু টয়লেট ব্যবহারের জন্য ট্যাংক থেকে নিচে নামি। ট্যাংকের নিচে অবস্থানরত আন্দোলনকারীরা আমাকে দড়ি দিয়ে একটি ব্যাগে খাবার এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র পৌঁছে দেন। আমি পাওয়ার ব্যাংক ব্যবহার করে আমার মোবাইল ফোন চার্জ দেই। আমার মা আমার উপর নির্ভরশীল। তারপরও আমি প্রতিবাদ চালিয়ে যাচ্ছি।

শিখা জানান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিচালিত প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করতেও তিনি রাজি আছেন।

তিনি আরও বলেন, ১২০ দিন হয়ে গেছে। সরকার আমার প্রতিবাদ আমলেই নিচ্ছে না।

এ ব্যাপারে মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের মহা পরিচালক অনামিকা সিং বলেন, তারা (আন্দোলনকারীরা) আমাদের সঙ্গে অনেকবার দেখা করেছে। আমরা তাদের বিষয়গুলোও বুঝিয়েছি। এভাবে প্রতিবাদ করা যায় না। আমরা তাদের প্রতি সহানুভূতিশীল। আমরা আলোচনার জন্য প্রস্তুত।