গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার আবেদন নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত: ১২:২৩ অপরাহ্ণ, শুক্র, ১৬ এপ্রিল ২১

নিউজ ডেস্ক।।

বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষে গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদন নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভর্তি কমিটি।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) সমন্বিত ভর্তি কমিটির ষষ্ঠ সভায় সর্বাত্মক লকডাউন শেষের পরবর্তী ১০ দিন পর্যন্ত আবেদন করা যাবে বলে সিদ্ধান্ত হয়।

এছাড়া মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থীদের ভর্তির শর্ত কিছুটা শিথিল করা হয়েছে। তবে বিজ্ঞান শাখার শিক্ষার্থীদের সব শর্ত অপরিবর্তিত থাকবে।

সমন্বিত ভর্তি কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক কামালউদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে সভায় গুচ্ছ প্রক্রিয়ায় ভর্তি পরীক্ষার কার্যক্রমে অর্ন্তভূক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর উপচার্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

এবার গুচ্ছভুক্ত প্রক্রিয়ায় পরীক্ষার মাধ্যমে ২০ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতক প্রথম বর্ষে ভর্তি করা হবে।

এই ভর্তি পরীক্ষার জন্য প্রাথমিক আবেদন গ্রহণ ১ এপ্রিল থেকে শুরু হয় এবং বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) পর্যন্ত জমা দেয়ার সুযোগ ছিল।

নতুন সিদ্ধান্তের ফলে চলমান সর্বাত্মক লকডাউন শেষ হওয়ার ১০ দিন পর্যন্ত আবেদন করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবারের বৈঠকের অপর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, মানবিকের শিক্ষার্থীরা এখন জিপিএ ৬ এবং বাণিজ্যের শিক্ষার্থীরা জিপিএ সাড়ে ৬ থাকলে নতুন করে আবেদনের সুযোগ পাবেন। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকে অবশ্য জিপিএ নূন্যতম ৩ থাকার শর্ত জুড়ে দেয়া হয়েছে।

এর আগে ভর্তির প্রথম বিজ্ঞপ্তিতে আবেদনের জন্য বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের জিপিএ ৮, বাণিজ্যের সাড়ে ৭ এবং মানবিকের শিক্ষার্থীদের জিপিএ ৭ থাকার বাধ্যবাধকতা দেয়া হয়েছিল।

সেখানে ভর্তিচ্ছুদের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের জিপিএ ন্যূনতম সাড়ে ৩ করে থাকার শর্ত ছিল। মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগের বেলায় এ ক্ষেত্রেও কিছুটা ছাড় দেয়া হয়েছে।

নতুন করে আবেদনে আগ্রহীরা আগামী ২১ এপ্রিল সকাল ১০টা থেকে আবেদন করতে পারবেন।

প্রাথমিক বাছাইয়ে যারা উত্তীর্ণ হবেন, সেসব শিক্ষার্থীদের মোবাইল ব্যাংকিং সেবার মাধ্যমে ৬০০ টাকা জমা দিয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য চূড়ান্ত আবেদন করতে হবে।

চূড়ান্ত আবেদনের সময়সীমা পরে জানানো হবে। আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৯ জুন পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.